কুতুবদিয়ায় এনজিও কর্মীর আত্মহত্যা

fec-image

কুতুবদিয়ায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে এক এনজিও কর্মী আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার (২৯ জুন) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বড়ঘোপ বায়তুশ শরফ রোডে ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও থানা সূত্র জানায়, বেসরকারি সংস্থা রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টারে ( রিক) ওয়ালিদ ফয়সাল (২৫) গত ৫ জুন প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কুতুবদিয়ায় যোগদান করে। বড়ঘোপ বায়তুশ শরফ রোডে রূপিয়া নামক ভবনে ভাড়া থাকে। মঙ্গলবার সকালে অফিসে যেতে সহকর্মীরা ডাকলে একটু পরে যাবে বলে টেবিলের উপর টুল রেখে গলায় রশি বেঁধে ঝুলে থাকে।

রুমমেট সিরাজুল মোস্তফা জানান, অফিসে আসতে দেরি দেখে রুমে খোঁজ নিতে গেলে তাকে ঝুলে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পুলিশ এসে প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর লাশ থানায় নিয়ে যায়। ফয়সালের স্ত্রীর সাথে ইদানিং মনোমালিন্য চলায় সোমবার রাতেও মোবাইলে কথা বলার সময় কেঁদেছে বলেও তিনি জানান। তার স্ত্রী নোয়াখালীতে স্বাস্থ্য কর্মী হিসেকে কাজ করছেন বলে জানা যায়।

থানার ওসি ওমর হায়দার বলেন, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এনজিও কর্মীর বাসায় তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
ফয়সাল চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবন নগর উপজেলার উতলী এলাকার সোনা মিয়ার পুত্র। সংসারে এক ভাই এক বোন ছিল তারা।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one + three =

আরও পড়ুন