কৃষকের ঋণের টাকা আত্মসাতের মামলায় বান্দরবানে যুবলীগ নেতা আটক

fec-image

ব্যংক কর্মকর্তার যোগসাজসে কৃষকদের জন্য ঋণের বরাদ্দ প্রায় ৫০লক্ষ টাকা আত্মসাতের মামলায় বান্দরবান সদর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ক্যচিং মার্মাকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে বান্দরবান জেলা শহরের ডিসি অফিসের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে বান্দরবান সদর থানা পুলিশের সহায়তায় আদালতে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, অগ্রণী ব্যাংক লি: বান্দরবান বাজার শাখা থেকে আদা ও হলুদ চাষীদের বিতরণ করার নামে ক্যচিং অংসহ অপরাপর আসামীরা ২৭লক্ষ ৭০ হাজার (সুদসহ ৫০লক্ষ ২২ হাজার ৫০৫) টাকা প্রতারণা জাল জালিয়াতির মাধ্যমে ও ভূয়া রেকর্ডপত্র তৈরী করে আত্মসাত করে। এই ঘটনা তদন্ত শেষে গত ২১ জুলাই ২০১৯ দুর্নীতি দমন কমিশন সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ এর উপসহকারী পরিচালক বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় ব্যাংকের ম্যানেজারসহ পাচঁ জনকে আসামী করা হয়।

মামলার বাদী দুদকের চট্টগ্রাম-২ উপ-সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জাফর সাদেক শিবলী বলেন, আদা-হলুদ চাষের জন্য ২০১১-১২ এবং ২০১২-১৩ অর্থবছরে বান্দরবান জেলায় ৩০টি ঋণের সুপারিশ করেন। স্থানীয় দালাল ক্যচিঅং মারমা প্রায় সবকটি ঋণের বিপরীতে গ্রাহকদের ছবি এবং জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ করে নিজেই আবেদন ফরম পূরণ, স্বাক্ষর প্রদানসহ যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে জমা দেন। ৩০টি ঋণের বিপরীতে অগ্রণী ব্যাংক বান্দরবান শাখা হতে ২৮ লাখ ৯০ হাজার টাকা পাহাড়ীদের আদা ও হলুদ চাষিদের মাঝে বিতরণ করা হবে দেখিয়ে উত্তোলন করা হয়। কিন্তু পরবর্তীতে কয়েকজন চাষিকে এক লাখ ২০ হাজার টাকা প্রদান করে বাকি ২৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা আত্মসাত করেন। যা সুদসহ মোট ৫০ লাখ ২২ হাজার ৫০৫ টাকা হয়েছে।

মামলায় অপরাপর আসামী করা হলো নিবারণ চন্দ্র তংচঙ্গ্যা, জ্ঞান চাকমা, জৌতিষ কুমার খীসা, হীরেন্দ্র লাল চাকমাকে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: ক্যচিং মার্মা, চট্টগ্রাম-২ উপ-সহকারী পরিচালক, দুদক
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × one =

আরও পড়ুন