ধর্ষণের অভিযোগে খাগড়াছড়িতে আইনজীবীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

fec-image

বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে খাগড়াছড়িতে শিক্ষানবীশ আইনজীবী বেলাল হোসেনকে(৩১) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে জেলা ও দায়রা জজ।  একই সাথে তাকে পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থদণ্ডও দেওয়া হয়।

বুধবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে খাগড়াছড়ি নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিচারক এবং জেলা ও দায়রা জজ রেজা মো. আলমগীর হাসান এই রায় ঘোষণা করেন।

এসময় আসামি এবং ভিকটিম আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আসামি বেলাল হোসেন চট্টগ্রামে শিক্ষানবীশ আইনজীবী হিসেবে কর্মরত ছিলেন বলে জানা গেছে।

আদালত সূত্র জানায়, ২০১৩ সালে বেলাল হোসেনের সাথে মুঠোফোনে পরিচয় হয় খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গার ভিকটিম(২৬)’র। তারপর বেলাল বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ভিকটিমের সাথে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করেন। কিন্তু একটি পর্যায় ভিকটিমকে বেলাল বিয়ে করতে অস্বীকার জানায়।

পরবর্তীতে ২০১৪ সালের ২৬ জুন ভিকটিম নিজে বাদি হয়ে মাটিরাঙ্গা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর একই বছরের ১০ অক্টোবর পুলিশ বেলাল হোসেনকে আসামি করে আদালতে চার্জশীট প্রদান করে।

মামলা চলাকালীন মোট ৭ জন সাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে ৬ বছরের মাথায় এই রায় ঘোষণা করেন।

ভিকটিমের আইনজীবী এডভোকেট জসিম উদ্দিন মজুমদার রায়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে জানিয়ে বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ ও সংশোধিত ২০০৩ এর ৯ (১) ধারায় যাবজ্জীবন ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আইনজীবী, ধর্ষণ, শিক্ষানবীশ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

9 + 13 =

আরও পড়ুন