খাগড়াছড়িতে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা ও দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে প্রশাসনের তৎপরতা

fec-image

খাগড়াছড়িতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলা ও দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে প্রশাসনের তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। বিদেশ ফেরত নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করতে প্রশাসন, পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা মাঠে কাজ করছেন।

শনিবার(২১ মার্চ) দুপুর পর্যন্ত বিদেশ ফেরত ৫৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এছাড়া বাকীদের অবস্থান খুঁজে বের করে তাদেরও হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনতে কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. নুপুর কান্তি দাশ।

এদিকে, করোনা পরিস্থিতিকে পুঁজি করে স্থানীয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়িয়ে বিক্রি ও মজুদ করার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছে প্রশাসন।

খাগড়াছড়ি সদর, দীঘিনালা ও মাটিরাঙ্গা উপজেলায় অবৈধভাবে চাল মজুদ ও বাড়তি দাম নেওয়ার অপরাধে ৪টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সিলগালার পাশাপাশি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড ও সর্তক করা হয়েছে।

এছাড়া করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক হিসেবে হোমিওপ্যাথিক ঔষধ বিক্ররে দায়ে সমীরন চৌধুরী নামে এক চিকিৎসককে অর্থদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।

খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার আব্দুল আজিজ জানান, ইমেগ্রেশন থেকে পাওয়া তথ্য মতে, ইতালি, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, বাহরানসহ বেশ কয়েকটি দেশের ২৫৮ জন খাগড়াছড়িতে ফিরেছেন। সেই তালিকা অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট সকল থানাকে অবহিত করা হয়েছে।

আমাদের অনুরোধ বৃহত্তর স্বার্থে তারা যেন আমদের সাথে যোগাযোগ করেন। এ ক্ষেত্রে বিদেশ ফেরতদের তথ্য দিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, করোনাভাইরাস ঠোকাতে জেলা প্রশাসন নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। জেলায় সব ধরণের রাজনৈতিক, সামাজিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠান, সরকারি-বেসরকারি ও স্বায়িত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করেছে। শহরজুড়ে মাইকিং হচ্ছে করোনাভাইরাস নিয়ে সচেনতা প্রচার।

খাগড়াছড়ি সিভিল সার্জন নুপুর কান্তি দাশ জানান, করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ভারত ফেরত এক নারীকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে আইসোলেশনে থাকা ঐ নারীর দেহে করোনাভাইরাসের অস্থিত্ব না পাওয়া তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ৫৫জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় জেলা প্রশাসককে আহ্বায়ক ও সিভিল সার্জনকে সদস্য সচিব করে ১১সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। উক্ত কমিটি করোনাভাইরাস মোকাবেলায় জাতীয় কমিটির নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করবে।

পরিস্থিতি মোকাবেলায় খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালসহ জেলার সবক’টি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সামান্য সর্দি জ্বর কাশিতে হাসপাতালমুখী না হয়ে প্রয়োজনে স্বাস্থ্য সেবা বিষয়ক মোবাইল পরিসেবা ১৬২৬৩ নাম্বারে কল করে সেবা নিতে এবং প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে সিভিল সার্জন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস, খাগড়াছড়ি, হোম কোয়ারেন্টাইন
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 5 =

আরও পড়ুন