গুইমারায় সহকারী শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ

fec-image

খাগড়াছড়ির গুইমারায় সহকারী শিক্ষক মো. ফয়েজ আহমেদ (৩৪) কর্তৃক ওই বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রীকে (১৬) ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক মো. ফয়েজ আহমেদ গুইমারা সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের গণিত বিষয়ের শিক্ষক এবং চাপাইনবয়াবগঞ্জ জেলার ভোলাহাট উপজেলার রাজানগর এলাকার ফরিদ আহমেদের ছেলে। গুইমারা মাস্টারপাড়া এলাকায় নন্দন বনিকের বাড়িতে ভাড়া থাকেন।

অভিযোগকারী জানান, গতকাল সোমবার গুইমারায় আমার বাড়ি আমার খামার উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গুইমারা সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের পক্ষে সহকারী শিক্ষক মো. ফয়েজ আহমেদ বিদ্যালয়ের কিছু ছাত্রীদের মোবাইল ফৈানে আসতে বলে। সংগীত পরিবেশনের প্রস্তুতির বিষয়ে রিহার্সেল এর জন্য সোমবার সকাল ১১টায় বিদ্যালয়ে আসতে বলে। সকাল ১১টা থেকে ১২.৩০পর্যন্ত মো. ফয়েজ তার বাড়িতে রিহার্সেল করান অভিযোগকারী সহ অপর ছাত্রীদের।

রিহার্সেলর পরে দুপুর ২টায় উদ্বোধন অনুষ্ঠানের পূর্বে অভিযোগকারী ওই শিক্ষকের বাড়িতে গেলে শিক্ষক তাকে প্রথমে চায়না মুভি দেখায়। পরে জড়িয়ে ধরে ধর্ষনের চেষ্টা করলে ভুক্তভোগি চিৎকার করে। এসময় এলাকার লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে।

অপরদিকে অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক মো. ফয়েজ আহমেদ জানান, দুপুরে মেয়েটি তার বাসায় যায়। তিনি মেয়েটির হাত ধরে জোরে টান দেন ভাত খাওয়ার জন্য।

আমার বাড়ি আমার খামারের উপজেলা সমন্ময়কারী শান্তানু মহাজন জানান, ব্যাংকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশনের জন্য বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের রিহার্সেল বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। এ ঘটনায় বিভন্ন ছাত্র সংগঠন দ্রুততম সময়ে অপরাধীকে আটকপূর্বক শাস্ত্রির দাবি জানিয়েছে।

এবিষয়ে গুইমারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে সহকারী শিক্ষক মো. ফয়েজ আহমেদের নামে ভুক্তভোগি বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে। ফয়েজ আহমেদ মামলার পর থেকে পলাতক রয়েছে। পুলিশের তদন্ত চলমান রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × five =

আরও পড়ুন