চকরিয়ায় মহাসড়কে চম্পা হত্যার রহস্য উদঘাটন করলো র‌্যাব: আটক সিএনজি চালক

fec-image

চট্টগ্রাম থেকে পেকুয়া, সেখান থেকে চকরিয়া কয়েক দফা ধর্ষণের শিকার হয়েছে চকরিয়ায় সড়কের পাশ থেকে উদ্ধার করা খরুলিয়ার যুবতী চম্পা (১৯) কে। তারপর ঘাতকরা চলন্ত গাাড় থেকে ফেলে হত্যা করে তাকে। এঘটনার রহস্য উদঘাটন করেছে র‌্যাব-১৫।

শুক্রবার (৮ মে) বিকেলে এসব তথ্য গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার আজিম আহমেদ।

তিনি জানান, চট্টগ্রাম থেকে আসা ওই নারী পেকুয়া পর্যন্ত আসে। সেখান থেকে এক সিএনজি চালক তাকে চকরিয়া আনে। কিন্তু পুনরায় আবারো পেকুয়ার দিকে নিয়ে যায়। প্রতিমধ্যে একটি ব্রীজের সাইটে তাকে দুই সিএনজি চালক মিলে ধর্ষণ করে। এরপর তার সাথে কথা কাটাকাটি হলে তাকে চলন্ত গাড়ি থেকে ফেলে দেয়া হয়।

তিনি আরও জানান, ঘাতকরা এতো নৃশংসভাবে হত্যা করেছে যে চলন্ত গাড়ির থেকে ফেলার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ির সামনে ফেলে দেয় তারা। ওই গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হয় চম্পার।

এঘটনায় জড়িত জয়নাল নামে এক সিএনজি চালককে আটক করা হয়েছে। অপরজনকে আটকে র‌্যাব-১৫ এর সদস্যরা অভিযান চালাচ্ছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

উল্লখ্যে যে, ৬ মে বুধবার রাত সাড়ে ১০টায় চকরিয়ার কোনাখালী ইউনিয়ন এলাকার বিশ্ব রোডে চলন্ত গাড়িতে হত্যা করে রাস্তায় লাশ ফেলে দেয়ার অভিযোগ উঠে। তার ফুফি ও ফুফাতো ভাইকে এ হত্যার জন্য দায়ী করে তার বাবা। কিন্তু আসল ঘটনা উদঘাটন করলো র‌্যাব-১৫।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: আটক, গণমাধ্যম, চকরিয়া
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × 1 =

আরও পড়ুন