ড্রেসিংরুমে নেইমার-এমবাপ্পের মারামারি

fec-image

পিএসজি ছাড়ার কথা ছিল কিলিয়ান এমবাপ্পের। কিন্তু তিনি প্যারিসের ক্লাবটির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করে একচ্ছত্র ক্ষমতার অধিকারী হয়ে উঠেছেন।

মৌসুম শুরুর আগেই গুঞ্জন ছিল নেইমারকে পিএসজিতে চান না ফ্রান্সম্যান এমবাপ্পে। মাঠে এবার তার প্রমাণ মিলল। এমবাপ্পেকে বল পাস না দেওয়ায় মিডফিল্ডার ভিতিনহার ওপর ক্ষেপে যান এমবাপ্পে। দৌড়ানো বন্ধ করে দেন। ম্যাচের শুরুতে পেনাল্টি নেন তিনি। কিন্তু মিস করেন। ওই পেনাল্টি মিস নিয়ে এক টুইটার থেকে প্রশ্ন তোলা হয়, নেইমার দলে থাকতে পেনাল্টি কেন এমবাপ্পে নিলেন। ব্রাজিলিয়ান তারকা ওই টুইটে লাইক দেন।

দ্বিতীয়ার্ধে লিগ ওয়ান চ্যাম্পিয়নরা আরেকটি পেনাল্টি পায়। এবারও এমবাপ্পে পেনাল্টি নিতে চাইলে তাকে দেননি নেইমার। নিজেই জোর করে পেনাল্টি নেন এবং গোল করেন।
স্বভাবতই এমবাপ্পে এই ঘটনায় খুশি হতে পারেননি। ম্যাচে তাকে অনেক সময়ই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। বল সামনে না আসলে দৌড়চ্ছিলেন না ফরাসি তারকা।

এরপর ড্রেসিংরুমে এ নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে হাতাহাতি লেগে যায় নেইমার-এমবাপ্পের। স্পোর্টস বাইবেলের প্রতিবেদন অনুযায়ী, দুজন চিৎকার করে একে অপরকে গালাগাল করছিলেন এবং মাথায় মাথায় ঠুকোঠুকি লেগে যান। সতীর্থরা এসে তাদের আলাদা করেন।

তবে তখনও ঝগড়া থামেনি। দুজন চিৎকার করতে থাকেন এবং আশেপাশে থাকা কিছু জিনিস ছুড়েও ফেলেন। ড্রেসিংরুমের সেই লড়াই এরপর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়ে।

বিষয়টি নিয়ে জল বেশি ঘোলা হতে দিতে চান না পিএসজির নতুন কোচ ক্রিস্টোফার গালতিয়ের। সেজন্য টিম ডিরেক্টর লুইস কম্পোস ও গালতিয়ের দলের দুই তারকা নেইমার ও এমবাপ্পের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন বলে জানিয়েছেন সংবাদ মাধ্যম এল ইকুইপে।

পিএসজি কোচ তাদের সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টা করবেন। তাদের মাথা ঠান্ডা রেখে ক্লাবের কথা ভেবে এক সঙ্গে কাজ করার অনুরোধ করবেন। গুঞ্জন আছে যে, এমবাপ্পের আচরণে এবং একক কর্তৃত্বে খুশি নন মেসিও । নেইমারের সঙ্গে লিও’র সম্পর্কও পুরনো। কোচ তাই তিন তারকার মধ্যে সুসম্পর্ক তৈরির চেষ্টা করবেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four + 13 =

আরও পড়ুন