চকরিয়ায় পূর্বশত্রুতার জেরে নানা-নাতিকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

fec-image

কক্সবাজারের চকরিয়ায় উপজেলার বিএমচর সড়কে একদল দুর্বৃত্ত পথ গতিরোধ করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে জাকের হোছাইন (৬০) ও তার নাতি তৌহিদুল ইসলাম (১৬) নামের কলেজ ছাত্রসহ দুই ব্যক্তিকে ধারালো অস্ত্রদিয়ে কুপিয়ে ও বেদড়ক মারধর করে গুরুতর আহত করা হয়েছে। আহতদের ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় আহতের পরিবার রবিবার রাতে থানায় এজাহার দায়ের করেছে।

শনিবার (১০ অক্টোবর) রাত ১১টার দিকে উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ডস্থ আলী আকবর মুন্সির বাড়ির সামনে চলাচল রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনায় হামলার শিকার জাকের হোছাইন ওই ইউনিয়ন ৪নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ বহদ্দার কাটা এলাকার মৃত হেদায়েত আলীর ছেলে ও তৌহিদুল ইসলাম একই এলাকার বাসিন্দা। আহতরা দুইজন সম্পর্কে নানা-নাতি।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাত ১১টার দিকে বিএমচর সড়ক দিয়ে দোকান থেকে বাড়ির দিকে যাচ্ছিল জাকের হোছাইন ও তার নাতি তৌহিদুল ইসলাম। প্রথিমধ্যে চলাচল রাস্তায় ইউনিয়নের ৫নম্বর ওয়ার্ডের উত্তর বহদ্দার কাটা এলাকার আলী আকবর মুন্সির বাড়ির সামনে পৌঁছলে পূর্বশত্রুতার আক্রোশে পরিকল্পিত ভাবে একই এলাকার মৃত মোহাম্মদ হোছাইনের পুত্র এরশাদ হোছাইন, আবুল হোছাইনের পুত্র মোজাফ্ফর আহমদ, মোহাম্মদ হোছাইনের পুত্র আমজাদ, আবুল হোছাইনের পুত্র জহির আলম ও তার ছেলে আবুল ইউসুফের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী জাকের হোছাইন ও তৌহিদের হঠাৎ চলাচল পথ গতিরোধ করে আক্রমণ করে। এসময় অতর্কিত ভাবে ধারালো কিরিচ দিয়ে হত্যার চেষ্টায় জাকের হোছাইনকে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।

নানা জাকের হোছাইনকে নাতি তৌহিদ বাঁচাতে উদ্ধার করতে গেলে তাকেও কুপিয়ে ও মারধর করে গুরুতর আহত করে। পরে ঘটনার খবর পেয়ে আহতদের পরিবার সদস্য এগিয়ে এসে ঘটনাস্থল থেকে তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করেন। হামলার এ ঘটনা নিয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আহত জাকের হোছাইনের স্ত্রী সুজন নাহার বাদি হয়ে থানায় লিখিত এজাহার দেয়া হয়েছে বলে জানায়।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, হামলার ঘটনায় একটি এজাহার দেয়া হয়েছে। তদন্তে ঘটনার সত্যতা পেলে পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: চকরিয়া, হত্যা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 4 =

আরও পড়ুন