পানছড়িতে স্ত্রীকে কোপানোর ঘটনায় স্বামী গ্রেপ্তার

fec-image

মোবাইলে বন্ধু বানিয়ে এজাহার নামীয় একমাত্র আসামি আলী নেওয়াজকে গ্রেপ্তার করেছে পানছড়ি থানার ওসি আনচারুল করিম।

আটক আলী নেওয়াজ উপজেলার উল্টাছড়ি ইউপির ওমরপুর গ্রামের বাসিন্দা। তার সাবেক বাসস্থান ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাট থানাধীন মোজাখালী গ্রামে।

গত ১ মে রাত আনুমানিক পৌনে নয়টার দিকে পানছড়ি তালুকদার পাড়ায় ভাড়া ঘরের উঠানে ধারালো দা দিয়ে এলোপাতাড়ি গলায় ও পিঠে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে স্ত্রী জরিনা আক্তার (১৯) কে। জরিনা মাটিরাঙা উপজেলার তবলছড়ি ইউপির সিংহপাড়ার আবদুল কাদেরের মেয়ে।

জরিনাকে গুরুতর আহত করে গা ঢাকা দেয় আলী নেওয়াজ। জরিনা বর্তমানে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে জরিনার ভাই আকতার হোসেন বাদী হয়ে পানছড়ি থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

আলী নেওয়াজের শ্যালক আকতার জানায়, তার দুলা ভাই ৪টি বিয়ে করেছে। যৌতুকের জন্য প্রায়ই মারধর করতো তার বোনকে। শেষ পর্যন্ত বোনটাকে কুপিয়ে মারার চেষ্টা চালিয়েছে। আলী নেওয়াজের মতো বিয়ে পাগলের কঠিন শাস্তি দাবি করে সে।

এদিকে ঘটনার ষোল ঘন্টা পার না হতেই মোবাইলে বন্ধু সেজে গত সোমবার (২ মে) আলী নেওয়াজকে গ্রেপ্তার করে প্রশংসা কুড়িয়েছে পানছড়ি থানার ওসি আনচারুল করিম।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (এসআই) অনিক দে জানান, ওসি স্যারের সুন্দর একটি পরিকল্পনায় আসামিকে সহজেই গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে।

ওসি আনচারুল করিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আসামিকে ঈদের দিন সকালেই কোর্টে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven + two =

আরও পড়ুন