রাঙামাটিতে টানা ৪র্থ দিনে ত্রাণ বিতরণ পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের

fec-image

করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে পরিত্রাণের জন্য ঘরবন্দী হতদরিদ্র মানুষের মাঝে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার উদ্যোগে টানা ৪র্থ দিন ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।

রোববার (১২ এপ্রিল) রাঙামাটি শহরের শিমুলতলী, কলেজ গেইট এলাকা ও সদর ইউনিয়নের সাপছড়ি মানিকছড়ির বিভিন্ন গ্রামের ঘরবন্দী মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

এসময় মানুষের দৈনন্দিন জীবনের খাদ্য দ্রব্য চাল, আলু, তেল ঘরবন্দী মানুষের হাতে তুলে দেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন করোনা নামক মহামারীর থেকে পরিত্রাণের জন্য সবাইকে সচেতন হতে হবে, বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা অপ্রয়োজনে বাসা থেকে বাহির না হওয়া, সরকারের দেওয়া নির্দেশনা মেনে চলা।

সেই সাথে আমরা পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ গণমানুষের দোরগোড়ায় গিয়ে খাদ্যদ্রব্য পৌঁছে দেয়ার জন্য সর্বোতভাবে চেষ্টা করছি। জনসমাগম এড়িয়ে যাতে হতদরিদ্র মানুষের ঘরে ঘরে দ্রব্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়া যায় সেদিকেও আমাদের নজর আছে। তাই বিভিন্ন এলাকায় বাসায় বাসায় গিয়ে ত্রান পৌছে দেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য যে,পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ আজও বিভিন্ন গ্রামে পাহাড়ি বাঙালি সকল সম্প্রদায়ের মাঝে (২০০) প্যাকেট খাদ্র সামগ্রী বিতরণ করে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিকী, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ রাঙামাটি জেলার নেতা কাজী মো. জালোয়া, স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য মো. হাবিব আজম, অন্যান্যদের মধ্যে নুরুল আলম নুরু প্রমুখ।

সংগঠনের নেতারা জানান, ত্রাণ দেওয়া চলমান থাকবে, আগামী দিনও শহরে ও বিভিন্ন উপজেলায় কর্মহীন ও দুস্থ মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ চলবে। পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ পার্বত্য জেলা গুলোতে পাহাড়ি ও বাঙালিদের অধিকার রক্ষার জন্য কাজ করে। এই দুর্যোগের সময় পাহাড়ি ও বাঙালিদের পাশে থাকবে এবং আছে। এমনকি দুর্যোগ মোকাবিলায় সরকারের সাথে আর্ত-মানবতার সেবায় এক সাথে কাজ করে যাবে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস, পার্বত্য, রাঙামাটি
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seven − three =

আরও পড়ুন