পেকুয়ায় যৌতুকের দায়ে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগ: স্বামী ও শাশুড়ি আটক

fec-image

কক্সবাজারের পেকুয়ায় যৌতুকের জন্য জেনুয়ারা বেগম (২০) নামের পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধুকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত গৃহবধুর লাশটি উদ্ধার করেছে। নিহত গৃহবধু জেনুয়ারা বেগম উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়নের করিয়ারদিয়া বাইন্যা পাড়া এলাকার মোহাম্মদ রিদুয়ানের স্ত্রী ও একই এলাকার আবুল কালামের মেয়ে। এ ঘটনায় পুলিশ নিহতের স্বামী রিদুয়ান ও শাশুড়ি ছকিনা বেগমকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে উজানটিয়া ইউনিয়নের করিয়ারদিয়া বাইন্যা পাড়া এলাকা থেকে পেকুয়া থানা পুলিশ নিহত গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে। গৃহবধুর মা সাদিয়া বেগমের দাবি তার শশুর বাড়ির লোকজন যৌতুকের জন্য তাকে নির্যাতন করে হত্যা করেছে।

পেকুয়া থানা সূত্রে জানা গেছে, উজানটিয়া ইউনিয়নের করিয়ারদিয়া বাইন্যা পাড়া এলাকায় এক গৃহবধুর আত্মহত্যার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। পেকুয়া থানার ওসির নির্দেশে থানার উপপরিদর্শক (এস.আই) সুমন সরকার সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে নিহত গৃহবধুর লাশটি উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারে যাওয়া পেকুয়া থানার উপপরিদর্শক (এস.আই) সুমন সরকার বলেন, নিহতের বসতঘর থেকে গৃহবধুর লাশটি আমরা গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় উদ্ধার করি। গৃহবধুর পিতা ও মায়ের অভিযোগ থাকায় স্বামী রিদুয়ান ও শাশুড়ী ছকিনা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

নিহত জেনুয়ারা’র মা সাদিয়া বেগম সাংবাদিকদের জানান, উজানটিয়া ইউনিয়নের করিয়ারদিয়া বাইন্যা পাড়া এলাকার আমিরাত প্রবাসী মোহাম্মদ রিদুয়ানের সাথে ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক আমার মেয়ে জেনুয়ারা বিয়ে হয়েছিল । বিয়ের কিছু দিনের মধ্যে স্বামী প্রবাসে চলে যায়। স্বামীর অবর্তমানে মেয়ের শাশুড়ী প্রায় সময় আমার মেয়েকে যৌতুকের দাবি তুলে নির্যাতন চালিয়ে মারধর করতো। একপর্যায়ে মারধরের ঘটনা জানতে পেরে তার স্বামী বিদেশ থেকে চলে আসে। এরই মধ্যে মেয়ে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। মেয়ের আপ্রাণ চেষ্টা ছিল তার স্বামীর সাথে সুখে সংসার করা।

তিনি আরও বলেন, গত ১৫দিন পূর্বে স্বামী রিদুয়ানের সাথে তার মা যোগসাজসে যৌতুকের জন্য মারধর ও নির্যাতন করে মেয়েকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। ওইদিন বিশ হাজার টাকা দাবিকৃত যৌতুকের টাকা আনতে না পারায় সেদিন মেয়েকে প্রচুর মারধর করা হয়েছে। মারধরের ঘটনার পর থেকে আর মেয়ের কোন খবর পায়নি। সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে মেয়ের স্বামী রিদুয়ান খবর দেয় আমাার মেয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তবে আমি নিশ্চিত মেয়ে জেনুয়ারা আত্মহত্যা করেনি তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে।

পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, গৃহবধুর লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় গৃহবধুর স্বামী ও তার শাশুড়ীকে আটক করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। লাশের প্রাথমিক সুরুতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে লাশ ময়নাতদন্তনের জন্য জেলা সদর হাসসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দিলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার, পেকুয়া, হত্যা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 2 =

আরও পড়ুন