বাংলাদেশ-মায়ানমার সীমান্তে গুলিবর্ষণ, উত্তেজনা: অতিরিক্ত সতর্ক অবস্থা জারি

faruk-pic-ukhiya-copy

উখিয়া প্রতিনিধি:

বাংলাদেশ-মায়ানমার সীমান্তের উখিয়ার সীমান্তবর্তী তুমব্রু এলাকায় গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে।  রবিবার বিকেলে সীমান্তের ৩২ ও ৩৩ নং পিলারের কাছেই মায়নমারের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বিজিপি’র সদস্যরা গুলি বর্ষণ করে। বাংলাদেশের সীমান্তের দায়িত্বে নিয়োজিত গোয়েন্দাবাহিনীর সদস্যরা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে  বলেন বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড বিজিবি’র সদস্যরা সীমান্ত এলাকায় কড়া সতর্ক অবস্থা জারিসহ বাড়তি নিরাপত্তা জোরদার করেছেন।  বিষয়টি ঢাকা সদর দপ্তরে জরুরী বার্তা প্রেরণ করেছে বলেও বিজিবি সূত্রে জানা গেছে।

এলাকাবাসীরা জানান, রবিবার সকাল থেকে উখিয়ার সীমান্তবর্তী এলাকার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম তুমব্রু এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছিল।  বিজিবির পক্ষ থেকে সাধারণ জনগণকে সতর্ক অবস্থায় চলাফেরা করতে বলা হয়। এদিকে স্থানীয় বাসিন্দা নুরুল ইসলাম বলেন এদিন বিকেলে তুমব্রু সীমান্তের পয়েন্টে ওপারের মায়নমারের সীমান্ত রক্ষী পরপর কয়েক রাউন্ড গুলি বর্ষণ করলে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

৩৪ বিজিবির তুমব্রু ক্যাম্পের কমন্ডার সুবেদার আবুল কালাম জানান,  সংঘটিত ঘটনাটি মায়ানমারের অভ্যন্তরে ঘটেছে।  ঘটনার পরপরই সীমান্তে টহল জোরদার বৃদ্ধি ও কড়া সতর্কবস্থায় বিজিবি’র সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছে।  ডিজিএসএস সার্জেন্ট ওহাব এ প্রতিবেদক কে টেলিফোনে জানান, রবিবার বিকেল ৪ টা ২০ মিনিটের সময় ৩৩ নং সীমান্ত পিলারের মাঝামাঝি তুমব্রু পয়েন্টে পর পর ৩ রাউন্ড গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। মায়ানমারের সীমান্ত বাহিনী বিজিপি’র সদস্যরা সে দেশের অভ্যন্তরে গুলিবর্ষণ করে। তিনি আরো বলেন, যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে  বাংলাদেশ সীমান্তে অতিরিক্ত সতর্ক অবস্থায় রয়েছেন বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড ও অন্যান্য বাহিনীর সদস্যরা।

আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এএফপি’র বরাত সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ মায়ানমার সীমান্তের সে দেশের রাখাইন বাজার সংলগ্ন মংডু শহরের বিজিপির সেক্টর ক্যাম্পে গত শনিবার গভীর রাতে হামলা ও বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। সশস্ত্র দূর্বৃত্তদের হামলায় বেশ কয়েকজন বিজিপি’র সদস্য নিহত ও অন্তত ৬ জন নিখোঁজ রয়েছে। বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবারুদ লুট করেছ হামলাকারী দূর্বৃত্তরা। সংবাদ সংস্থা বিবিসি জানায়, সশস্ত্র দূর্বৃত্তরা অন্তত তিনটি সীমান্ত চৌকিতে হামলা চালিয়ে অস্ত্র লুট করে।

এদিকে সীমান্তের একাধিক সূত্রে জানা গেছে, সশস্ত্র হামলার পরপরই মায়ানমারের সীমান্তবর্তী এলাকায় জরুরী অবস্থা জারী করা হয়েছে। চালানো হচ্ছে ব্যাপক ধরপাকড়। শুরু হয়েছে রাখাইন এলাকায় দফায় দফায় দাঙ্গা হাঙ্গামা। বহু লোক নিহত হয়েছে বলে অসমর্থিত সূত্রে জানা গেছে।

সর্বশেষ খবরে জানা যায়, বাংলাদেশ-মায়ানমার সীমান্তের ৪৮ কিলোমিটার জুড়ে মায়ানমারের সেনাবাহিনী মোতায়েন করে টহল দিচ্ছে। পক্ষান্তরে বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বিজিবি বিষয়টি পর্যবেক্ষণসহ বাড়তি নিরাপত্তা ও অতিরিক্ত সতর্কাবস্থা জারি করেছেন বলে দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 − one =

আরও পড়ুন