বান্দরবানে রাজগুরু বৌদ্ধ বিহারে পরীক্ষা করা হলো হাজার বছরের পুরানো বুদ্ধমূর্তি

fec-image

বান্দরবান পার্বত্য জেলায় রাজগুরু বৌদ্ধ বিহারে হাজার বছরে পুরানো (বুদ্ধমূর্তি) কে নিয়ে আলোচনা ও সমালোচনা ঝড় উঠেছে তা আসল কিনা?

অবশেষে  রবিবার(১৬ আগস্ট) সকালে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি প্রত্নতাত্ত্বিক দল উপস্থিত হয়ে তা আসল নাকি নকল বুদ্ধমূর্তি পরীক্ষা নীরিক্ষা করতে।

রবিবার সকাল ৯টার সময় বান্দরবান রাজগুরু বৌদ্ধ বিহারে হাজার বছরে পুরনো বুদ্ধমূর্তি পরীক্ষা করতে উপস্থিত হন প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার মো. সোহরাব উদ্দিন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রবাষিকা শারমিন রেজওয়ান, মোহাম্মদ শাহিন আলম, পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা, রাজ পরিবারের সদস্য, রাজগুরু বিহারে ক্যং কমিটির সদস্য ও দায়ক-দায়িকাবৃন্দ সহ প্রত্নতত্ত্ব কর্মকর্তা, চট্টগ্রাম, সিলেট, কুমিল্লার চার বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তার একটি দল ।

সকাল ১০ টার সময় শুরু হয়ে পরীক্ষা শেষ হয় দুপুর ১ টার সময় শেষ হয়। এই অধির আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় ছিল উপস্থিত সকলে।

পরীক্ষার শেষে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর আঞ্চলিক পরিচালক ড. মো. আতাউর রহমান জানিয়েছেন, তিনটা বুদ্ধমূর্তি তিন ধরনের এবং তিন সময়ের তৈরি। আমরা সব পরীক্ষা নীরিক্ষা করে বিভিন্নভাবে নমুনা সংগ্রহ করেছি।

এই নমুনা গুলো নিয়ে ঢাকায় বিশেষজ্ঞ দলের সাথে বসবো। এর পর জানা যাবে আসল নাকি নকল। এই মুহুর্তে কিছুই বলতে পারছিনা।

আমরা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অর্থাৎ সাত দিনের ভিতরে বুদ্ধমূর্তি আসল কিংবা নকল জানিয়ে দেয়া হবে।

শেষে তিনি বলেন, অষ্টধাতু দিয়ে তৈরি মুর্তিগুলো যতই পরিস্কার করবেন ততই চকচক করবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুমিল্লা প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ, বুদ্ধমূর্তি, বৌদ্ধ বিহার
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × one =

আরও পড়ুন