মহালছড়িতে দুই’শ বিঘা জমিতে গাঁজার ক্ষেত ধ্বংসে শতাধিক কর্মী, অভিযান শেষ হতে লাগবে আরও দুই দিন

fec-image

খাগড়াছড়িতে সেনাবাহিনীর অভিযানে সন্ধান পাওয়া শত কোটি টাকা মূল্যের দুই’শ বিঘা জমিতে গাঁজার ক্ষেত ধ্বংসে কাজ করছে শতাধিক সেনা, পুলিশ ও মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মী। এ ধ্বংসের অভিযান শেষ হতে আরও অন্তত দুই দিন সময় লাগবে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, সেনাবাহিনীর মহালছড়ি জোনের অধিনায়ক লে. কর্নেল মেহেদি হাসান।

বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়ির দুর্গম দুল্যা কমলচরণ চাকমা পাড়ায় বিশাল গাঁজা ক্ষেতের সন্ধান পায় সেনাবাহিনী। এরপর শুরু হয় গাঁজা গাছ কেটে আগুন লাগানো প্রক্রিয়া। তবে এ সময় গাঁজা চাষের সঙ্গে সম্পৃক্ত কাউকে আটক করা যায়নি। নিরাপত্তা বাহিনীর উপস্থিতিতে গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে অবৈধ গাঁজা চাষিরা।

সেনাবাহিনীর মহালছড়ি জোনের অধিনায়ক লে. কর্নেল মেহেদি হাসান জানান, গাঁজা ক্ষেত ধ্বংসের পাশাপাশি আশপাশের এলাকায় ড্রোন ও পেট্রলিং করে আরও অনুসন্ধান চালানো হবে। তার মতে দীর্ঘদিন ধরে একটি বিশেষ গোষ্ঠীর ছত্রছায়ায় খাগড়াছড়ির দুর্গম পাহাড়ে গাঁজার চাষ করা হচ্ছে। গাঁজা চাষের জন্য দুর্গম পাহাড়ি এলাকাকে বেছে নেয়া হয়েছে।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের তথ্যমতে, ৩৫টি ক্ষেতে আনুমানিক ৪০ টনের মতো গাঁজা চাষ হয়েছে। যার বাজার মূল্য শত কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

উল্লেখ, গত ২২ ডিসেম্বর খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলার প্রত্যন্ত কলাবুনিয়া এলাকায় সেনাবাহিনী অভিযান চালিয়ে ৭ বিঘা জমির গাঁজার ক্ষেত ধ্বংস করে দিয়েছে। যার বাজার মূল্য আনুমানিক প্রায় ৪ কোটি টাকা।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + 11 =

আরও পড়ুন