মিয়ানমারে সংঘাত: উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গুলিতে বাংলাদেশি যুবক আহত

fec-image

মিয়ানমারে চলমান যুদ্ধে অংশ নিতে চাপ প্রয়োগ নিয়ে কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসী সংগঠনের সাথে সাধারণ রোহিঙ্গাদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় নুরুল ইসলাম নামের এক বাংলাদেশি যুবক গুলিবিদ্ধ হয়েছে। আহত হয় পুলিশসহ আরও বেশ কয়েকজন।

মঙ্গলবার (২১ মে) ভোর থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত উখিয়ার লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এই ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত নুরুল ইসলাম (২৩) উখিয়া কুতুপালং এলাকার সৈয়দ নূরের ছেলে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) দাবি, মিয়ানমারে চলমান যুদ্ধে অংশ নিতে চাপ প্রয়োগ করলে সন্ত্রাসী সংগঠনের সাথে সাধারণ রোহিঙ্গাদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়।

১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ওয়াহিদ বলেন, ভোর থেকে সাধারণ রোহিঙ্গা ও সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠনের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশ ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। এ সময় রোহিঙ্গারাও পুলিশের ওপর হামলা করে। আমাদের একটি গাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশের সদস্যদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হন। তবে এই মুহূর্তে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এখনো রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। মূলত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের চলমান যুদ্ধে অংশ নিতে চাপ প্রয়োগ করলে সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠনের সাথে এই সংঘর্ষ হয়।

স্থানীয় যুবকের গুলিবিদ্ধ হওয়া নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, কীভাবে হয়েছে সেটি আমার জানা নেই।

স্থানীয় ইউপি সদস্য হেলাল উদ্দিন বলেন, গতকাল থেকে দফায় দফায় সংঘর্ষ চলছে। আজ পুলিশের গুলিতে নুরুল ইসলাম নামের বাংলাদেশি যুবক গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। আমরা স্থানীয়রা হুমকিতে আছি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন