মিয়ানমারে সেনা ও নৌবাহিনীর গুলিতে ১ গ্রামবাসী নিহত, আহত ৪

fec-image

মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যের প্লাটওয়া শহরতলীর মিলাওয়া গ্রামে ৩০ মে সকাল ৯টার দিকে সরকারি সংস্থার ছোঁড়া গুলি লেগে একজন নিহত ও রাখাইনে রাথিডং শহরতলীতে ৩০ মে রাত ৮টার দিকে মিয়ানমার নৌবাহিনীর জাহাজ থেকে এলোপাতাড়ি গুলিতে চারজন আহত হয়েছে বলে স্থানীয় লোকজনের সূত্রে জানা গেছে।

প্লাটওয়া শহরস্থ যুদ্ধ-উদ্বাস্তু শরণার্থী ক্যাম্পে আশ্রিত অক্-মিলাওয়া গ্রামবাসী ১৩ জন নিজ গ্রামে জ্বালানি কাঠ সংগ্রহ করে ফেরার পথে একজন গুলি লেগে নিহত হয়েছে বলে নিহতের সঙ্গী উক্যঞিং বার্তা সংস্থা ডি এম জি-কে বলেন।

উক্যঞিং বলেন, আমরা ১৩ জন শরণার্থী আশ্রয় কেন্দ্র থেকে ৩০ মে শনিবার ভোরে জ্বালানি কাঠ নিতে নিজ গ্রামে গিয়ে ফেরার পথে গুলির শব্দ শুনি। প্লাটওয়া শহর দিকে কালাদান নদীর পাড় হতে গিয়ে অক্-মিলাওয়া গ্রামের ডহেমা(৬২) গুলি লেগে সাথে সাথে নিহত হন।

দীর্ঘদিন যাবৎ অক্-মিলাওয়া গ্রামের নিকটে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অস্থায়ী ঘাঁটি বসে অবস্থান করছে বলে স্থানীয় নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক লোকজন জানান।

চিন রাজ্যের উন্নয়নমন্ত্রী উচোথাক্ গুলি লেগে নিহতের ঘটনা নিশ্চিত করে এবং কে বা কারা গুলি করেছে তিনি এখনো জানেন না বলে জানান।

রাথিডং শহরতলীর চাফোক্যোয়াইন গ্রামের চেয়ারম্যান উউক্যঞিং বলেন, ৩০ মে (শনিবার) রাত ৮টার দিকে মিয়ানমার নৌবাহিনীরা মেয়ু নদী পথে ৩০ মিনিট যাবৎ এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে আসে। এতে চারজন গুলি লেগে আহত হন। বর্তমানে আহতরা নিকটস্থ জেদিপ্রাং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বলে চেয়ারম্যান জানান।

আহতরা হলেন, রাথিডং শহরতলীর কেংব্রাং যুদ্ধ-উদ্বাস্তু আশ্রয় কেন্দ্রের মংসেংথোয়াই, ডোওয়েক্ষ্যং গ্রামের অংঞিং, চোনাইথোয়াই ও খাংম্যোএ ।

রাথিডং শহরতলীর সাংসদ ড-খাংচওয়ে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শনিবার রাত ৯টার দিকে আহতদের জেদিপ্রাং হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বুছিডং এলাকায় ৩০ মে (শনিবার) কোন সংঘর্ষ হয়নি বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানার জন্য মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মুখপাত্র ও প্রচার কমিটিকে যোগাযোগ করা হলেও সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, ২৬ মে অক্-মিলাওয়া গ্রামের অগ্নিসংযোগে ৬০টি বসতবাড়ি আগুনে পুড়িয়ে গেছে বলে গ্রামবাসীরার সূত্রে জানা গেছে। অক্-মিলাওয়া গ্রামটিতে শত বসতবাড়ি নিয়ে ৫০০ জন অধিক বসবাস।

গত ২১ মে উক্ত অক্-মিলাওয়া গ্রামের পাশাপাশি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সাথে আরাকান আর্মির সংঘর্ষের পর গ্রামবাসী সকলে নিজ বসতবাড়ি ছেড়ে প্লাটওয়া শহরে পালিয়ে এসেছে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 + one =

আরও পড়ুন