মেয়েকে ধর্ষণের মামলায় পিতার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

fec-image

নিজের মেয়েকে ধর্ষণের মামলায় পিতা শামসুল আলম (৪৫)কে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থ দণ্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। সেই সঙ্গে জরিমানা অনাদায়ে আরও ১ বছর সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

বুধবার (৩ মার্চ) দুপুরে কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক জেবুন্নাহার আয়েশা এ আদেশ প্রদান করেছেন।

আসামি শামসুল আলম রামুর রশিদ নগরের ৮নং ওয়ার্ডের ধলিরছরা মুরাপাড়ার আবদুর রহমানের ছেলে। রায় ঘোষণাকালে আসামি শামসুল আলম জনাকীর্ণ আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। আসামি পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মোস্তাক আহমদ চৌধুরী।

রাষ্ট্র পক্ষে নিয়োজিত স্পেশাল পিপি এডভোকেট সৈয়দ মো. রেজাউর রহমান রেজা এ তথ্য জানিয়েছেন।

নিজের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে ২০১৮ সালের ৬ জুলাই শামসুল আলমের বিরুদ্ধে রামু থানায় মামলা দায়ের করেন স্ত্রী রাজিয়া বেগম (৩৮)।

মামলার তদন্ত শেষে ২০১৯ সালের ১৪ মে ৯(১) ধারায় আসামি শামসুল আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।  মামলায় রাজিয়া বেগম উল্লেখ করেছেন, ২০১৮ সালের ২৮ জুন রাত সাড়ে ১১টার দিকে তিনি বাড়িতে না থাকার সুযোগে নিজের মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে শামসুল আলম। পরে মেয়ে অসুস্থতাবোধ করলে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানতে পারেন।

আদালতের রায়ে সন্তুষ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের কুশলী সৈয়দ মো. রেজাউর রহমান রেজা। তিনি বলেন, ধর্ষণের ঘটনা তদন্তে সত্য প্রমাণিত। আদালতে ন্যায় বিচার নিশ্চিত হয়েছে। রায়ে বাদিপক্ষ সন্তুষ্ট।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কারাদণ্ড, ধর্ষণের মামলা, পিতা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 − 1 =

আরও পড়ুন