নানিয়ারচরে ৪ পাহাড়ি ও ১ বাঙালি হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার

fec-image

রাঙামাটির নানিয়ারচরে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ইউপিডিএফ (মূলদল) এর সশস্ত্র সন্ত্রাসী ও চাঁদা আদায়কারী এবং ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর সাবেক আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমাসহ ৪ জন পাহাড়ি ও ১ জন বাঙালি হত্যা মামলার আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার (২ মার্চ) আনুমানিক রাত সাড়ে ৩টার দিকে নানিয়ারচর জোনের একটি টহল দল নানিয়ারচর উপজেলার আওতাধীন ১৯ মাইল এলাকায় অভিযান চালিয়ে ইউপিডিএফ (মূলদল) এর সশস্ত্র সন্ত্রাসী এবং ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর সাবেক আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমাসহ ৪ জন পাহাড়ি ও ১ জন বাঙালি হত্যা মামলার অন্যতম আসামি দিগন্ত চাকমা (৩১) কে গ্রেফতার করে।

দিগন্ত চাকমা দীর্ঘদিন যাবৎ নানিয়ারচর উপজেলার ১৭ মাইল, ১৮ মাইল, বেতছড়ি ও কেংগালছড়ি এলাকায় ইউপিডিএফ (মূল দল) এর হত্যা, অপহরণ ও চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপ এর সাথে জড়িত রয়েছে।

উল্লেখ্য, সে গত ১১ ফেব্রুয়ারিতে দিশানপাড়া এলাকায় ভূমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে স্থানীয় পাহাড়ি-বাঙ্গালীদের মাঝে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করার পরিকল্পনার পেছনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে।

ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় পাহাড়িদেরকে বাঙ্গালীদের উপর হামলা চালানোর জন্য উষ্কে দেয় এবং সহিংসতায় নেতৃত্ব প্রদান করে।

ওই সহিংসতায় ১৩ জন বাঙালি আহত হয়। এছাড়া উক্ত দুষ্কৃতিকারী গত ৪ মে ২০১৮ তারিখে কেংগালছড়ি এলাকায় সংঘঠিত ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর সাবেক আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমা ওরফে বর্মাসহ ৪ জন পাহাড়ি ও ১ জন বাঙালি হত্যাকাণ্ডে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে।

সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে শঙ্খদীশ কুমার বড়ুয়া একজন কাঠ ব্যবসায়ী ও দিগন্ত চাকমা নান্যাচর সদর ইউপি’র ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার উল্লেখ করে ইউপিডিএফের রাঙামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা জানান, তারা উভয়েই কোন সময় ইউপিডিএফের কর্মী ছিলেন না। তারা নিজ নিজ পেশায় নিয়োজিত থেকে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

আরও পড়ুন