রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদানে সাগর চৌধুরী জড়িত নয় বলে দাবি পরিবারের

fec-image

রোহিঙ্গ্যাদের ভোটার করা বা জাতীয় পরিচয়পত্র পাইয়ে দেয়ার ঘটনার মামলায় সাগর চৌধুরী জড়িত নয় বলে দাবি তাঁর বাবা মায়ের। সেই সাথে নির্বাচন কমিশনের দেয়া অব্যাহতি বা চাকুরীচ্যুত কর্মচারীদের মধ্যে তালিকাভুক্ত না হয়েও তাকে আসামি করা হয়েছে। এতে করে প্রকৃত সত্য আড়াল হয়ে যাচ্ছে বলেও দাবি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) সকালে শহরের দৈনিক রাঙ্গামাটি কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাগর চৌধুরীর বাবা বাবুল চৌধুরী ও মা সন্ধ্যা চৌধুরী এ দাবি জানিয়েছেন। এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, সাগর চৌধুরীর বাবা, মাসহ আত্মীয় স্বজনরাও। এছাড়া স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিক এবং ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকগণও উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সাগর চৌধুরীর বাবা বলেন, তাঁর সন্তান নির্বাচন কমিশনের পিইআরপি ও এফএনআইডিসি প্রকল্পের অধীন বিগত ২০০৯ সালের ৬ জুন চাকরি পায় এবং প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হলে ২০১২ সালের ১২ মে তারিখ প্রকল্পের চাকরি থেকে অব্যাহতি পায়। পরে সে বছরের ৩ সেপ্টেম্বর টাইগার আইটি বাংলাদেশ লিমিটেড এর চাকরি পায় এবং বাংলাদেশ মেশিন টুলস্ ফ্যাক্টরী (বিএমটিএফ) জয়দেবপুর গাজীপুরস্থ কর্মরত রয়েছে। নির্বাচন কমিশনে চাকরি না করেও তাকে আসামি করা হয়েছে, এবং দেশের কিছু জাতীয় দৈনিক ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় সাগর চৌধুরীকে রোহিঙ্গ্যাদের ভোটার করা বা জাতীয় পরিচয়পত্র পাইয়ে দেয়ার ঘটনার মাস্টারমাইন্ড বলে সংবাদ প্রচার করা হয়েছে যা খুবই দুঃখ জনক। এতে করে সত্যিকার যারা ঐ হীন কাজে জড়িত তারা অধরা থাকছে। এখানে প্রকৃত সত্য আড়াল হচ্ছে, দেশের জনগণ সত্য ঘটনা থেকেও বঞ্চিত হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, আমরাও চাই প্রকৃত দোষীরা শাস্তি পাক। এ বিষয়ে গণমাধ্যমও প্রকৃত সত্যকে তুলে ধরুক। সাগর চৌধুরী অন্যত্র চাকরি করেও তাকে আসামি করা হয়েছে। এর পরেও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল সাগর চৌধুরী উপস্থিত হয়ে অন্তবর্তীকালীন জামিন আবেদন করলে মহামান্য হাইকোর্ট তাঁকে চার সপ্তাহের জামিন মঞ্জুর করেন। জমিন আদেশ শেষ হলে আবারো চট্টগ্রামস্থ নিম্ন আদালতে জামিন প্রার্থনা করলে তাকে আদালত না মঞ্জুর করেন এবং তদন্তকারী কর্মকর্তার আবেদনমূলে তাঁকে সাত দিনের রিমান্ড দেন। পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সাগর চৌধুরীর বাবা-মা বলেন সে আমাদের একমাত্র আয় রোজগার এবং বেঁচে থাকার ভরসা। প্রকৃত সত্য ঘটনা যাঁচাই করে সাগর চৌধুরীকে মুক্তি দেয়ার জন্য নির্বাচন কমিশন তথা সরকারের প্রতি বিশেষ দৃষ্টি কামনা করেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fifteen + 15 =

আরও পড়ুন