লামায় কৃষি বিভাগের জায়গা জবর দখল করে নির্মাণ হচ্ছে দোকান

fec-image

লামা উপজেলার রূপসী পাড়ায় কৃষি বিভাগের কয়েক কোটি টাকা মূল্যের জায়গা অবৈধভাবে জবর দখল করে স্থাপনা নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলা কৃষি অফিসার তাদের জায়গা অবৈধ ২৪ জন জবর দখলকারীকে চি‎হ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পত্র প্রেরণ করেছেন।

কৃষি বিভাগ জানিয়েছেন, ১৯৮৪-৮৫ ইং সনের ২১(১)/৮৪-৮৫ নং এল এ মামলা মূলে ২৯৪নং দরদরী মৌজার ১০নং খতিয়ানের ২৪৪৭নং দাগের ০.৩৩ শতক জমি বান্দরবান জেলার কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের সহকারী পরিচালক এর নামে নামজারী মূলে হুকুম দখল করা হয়। কৃষি বিভাগ উক্ত জায়গায় উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা অফিস কাম বাসস্থান নির্মাণ করে বিভাগীয় কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা অঞ্জুশ্রী দে জানান, বর্তমানে কৃষি বিভাগের নির্মিত ভবনটির অবস্থা খুবই জরাজীর্ণ। মেরামতের অভাবে ভবনটি ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। স্থানীয় একটি চক্র কৃষি বিভাগের জায়গায় জোর পূর্বক দোকান ঘর নির্মাণ করে ব্যবসা করছে ও ভাড়া দিয়ে প্রতিবছর লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

আরো অভিযোগ উঠেছে রূপসী পাড়া বাজার কমিটি কৃষি বিভাগের সরকারি জায়গা প্লট আকারে ব্যবসায়ীদের নিকট বরাদ্দ দিয়েছেন। ব্যবসায়ী সুলতান কারবারী (৭০) জানান, রূপসী পাড়া বাজার কমিটির কাছ থেকে প্লট বরাদ্দ নিয়ে তিনি দীর্ঘ ২০ বছর যাবৎ এই জায়গায় ব্যবসা করছেন। কিছুদিন পূর্বে দোকান ঘর পুড়ে যাওয়ায় একই জায়গায় পুনরায় ব্যবসা করার জন্য ভবন নির্মাণ করছেন।

রূপসী পাড়া বাজার কমিটির সেক্রেটারী এমাদুল হক জানান, তার পূর্বের কমিটি দোকান প্লট বরাদ্দ দিয়েছে। ইউপি মেম্বার আবুল হোসেন ও শাহা আলম জানান, কৃষি বিভাগের দায়িত্বহীনতার কারণে সরকারি এই জায়গা জবর দখলের কবলে পড়েছে। সরকারি সম্পদ উদ্ধারে কর্তৃপক্ষের উদাসীনতাকে তারা দায়ী করেছেন।

রূপসী পাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ছাচিং প্রু মার্মা জানান, কিছু ব্যবসায়ী রূপসী পাড়া বাজার কমিটির সহায়তায় কৃষি বিভাগের জায়গা অবৈধভাবে জবর দখল করে ভবন নির্মাণ করছে। অনেকে কাঁচা ঘর তৈরি করে ব্যবসা বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। কৃষি বিভাগের সরকারি জায়গা অধিকাংশই বর্তমানে জবর দখলকারীদের কবলে। উপজেলা কৃষি অফিসার মো. মামুন ইয়াকুব জানান, সরকারি জায়গা রক্ষা করা সকলের দায়িত্ব। প্রশাসনকে বিষয়টি একাধিকবার জানানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি জানান, অবৈধ জবর দখলকারীদের কবল থেকে সরকারি এই জায়গা উদ্ধারে শীঘ্রই যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বান্দরবানের উপ-পরিচালক ড: এ কে এম নাজমুল হক জানান, যেকোন মূল্যে জবর দখল হতে কৃষি বিভাগের জায়গা উদ্ধার করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen − 2 =

আরও পড়ুন