লামায় মদ খাইয়ে এক সন্তানের জননীকে ধর্ষণের অভিযোগ!

নিজস্ব প্রতিনিধি, বান্দরবান:

বান্দরবানের লামায় দেশীয় তৈরী মদ খাইয়ে স্বামী পরিত্যক্তা এক নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে ঘটনাটি ঘটেছে জেলার লামা উপজেলার অংহ্লারিপাড়া এলাকায়। ঘটনায় গণধর্ষের শিকার ওই নারীর বিষয়টি স্থানীয় একটি মহল ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, চার বছর বয়সী এক সন্তানের জননী (২৭)কে মদ খাইয়ে মাতাল করে জনৈক সবজি বিক্রেতা নূর হোসেনের নেতৃত্বে ৫-৬জন ব‌্যাক্তি পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

ঘটনার পর স্থানীয়ভাবে জানাজানি হলে ইউপি সদস‌্য মো: কামাল উদ্দিন ও শহিদুজ্জামান মিলে অপর নারী ইউপি সদস‌্য সুমির দোকানে বৈঠকে বসেন। পরে বিষয়টি নিয়ে বুধবার শালিশী বৈঠকের কথা বলে ধর্ষক ও ধর্ষিতাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ওই বৈঠকে সাজেদা পারভিন নামে একজন মানবাধিকারকর্মীও উপস্থিত ছিলেন।

এই প্রসঙ্গে জানতে ইউপি মেম্বার কামাল ও শহিদ এর মুঠোফোনে মঙ্গলবার রাতে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি। তবে শহিদ মেম্বার স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে ওই ঘটনার বিষয়ে বৈঠকে বসার কথা স্বীকার করেছেন।

এদিকে মুঠোফোনে দীর্ঘক্ষণ যোগাযোগের পর ৭, ৮, ৯নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার আনাই মারমা সুমি এই প্রতিবেদককে জানান, আমি ধর্মীয় অনুষ্ঠান নিয়ে ব‌্যস্ত ছিলাম। এই ধরনের একটি খবর পেয়ে অপর দুই মেম্বারসহ বৈঠক হয়। কিন্তু অভিযুক্ত নারী ও পুরুষ দুইজনই মাতাল হওয়ায় বিস্তারিত জানা যায়নি।

তবে ওই নারীটি ধর্ষিত হয়নি দাবী করেছে। স্থানীয়দের দাবী মাতাল থাকায় নারীটি এমন কথা বলছে। সর্বশেষ খবরে জানা গেছে মেয়েটি অসুস্থ অবস্থায় নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে। আজ সকালে পুণরায় েএ নিয়ে বিচার হবে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: গণধর্ষণ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 + 20 =

আরও পড়ুন