স্বপ্নের পদ্মা সেতু নিয়ে বান্দরবান নাগরিক সমাজের ভাবনা

fec-image

স্বপ্নের পদ্মা সেতু নিয়ে পর্যটনের রানী হিসাবে খ্যাত পার্বত্য বান্দরবান জেলা বাসী উচ্ছ্বসিত। এই পদ্মা সেতুর মাধ্যমে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সাথে ঢাকার সাথে সহজে ও নিরাপদে যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে উঠবে। একইসাথে নতুন নতুন ব্যবসায়ীক সুযোগ সুবিধা পাওয়া যাবে। ফলে সমৃদ্ধ হবে পর্যটন খাত।

গত ষোল বছরে এই সরকারের অনেক অনেক উন্নয়ন রয়েছে। নিজস্ব অর্থে পদ্মা সেতু নির্মাণ করায় বর্তমান সরকারের উন্নয়ন আবারো দৃশ্যমান হল। পদ্মা সেতু শুধু বাংলাদের সম্পদ নয়, এটি এখন আর্ন্তজাতিক সম্পদে পরিণত হয়েছে। এই পদ্মা সেতুর মাধ্যমে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সাথে সহজে নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে উঠবে।

বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার একান্ত প্রচেষ্টায়, মেধামনন যুগান্তকারী সিদ্ধান্তে এবং সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে র্নিমাণ করা হয়েছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু। এই সেতু নির্মাণের ফলে দক্ষিণাঞ্চলের ২১টি জেলার মানুষ খুব সহজে এবং কম সময়ে ঢাকা যাতায়াত করতে পারবে। এত বছর জেলার মানুষ নৌ পথে এবং ফেরীর মাধ্যমে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়ত করত। এখন পদ্মা সেতু নির্মাণের ফলে এই মানুষ গুলো দ্রুত ঢাকায় এসে চিকিৎসা নিতে পারবে।

পার্বত্য জেলা বান্দরবানে ব্যবসা, চাকুরীসহ বিভিন্ন পেশার সাথে জড়িত দক্ষিণাঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ। পদ্মা সেতু নির্মাণের ফলে ঢাকার সাথে সহজ যোগাযোগ সৃষ্টি হবে এতে অনেক খুশি বান্দরবানে অবস্থানরত বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ।

বড়দের পাশাপাশি ছোটরাও বুঝতে শুরু করেছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কত গুরুত্ব। পদ্মা সেতু নির্মাণের ফলে বাড়ি যেতে আর কষ্ট হবেনা। স্বপ্নের পদ্মা সেতু নিজ চোখে দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করেন এই শিক্ষার্থী।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: পদ্মা সেতু, বান্দরবান
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 − 7 =

আরও পড়ুন