“উপজেলার দক্ষিণ প্রান্তে  তাবালের চরে বেশ কয়েকটি স্থানের ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি ভিতরে প্রবেশ করে নিম্নাঞ্চল তলিয়ে গেছে।”

ঘুর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে কুতুবদিয়ায় ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি ঢুকছে

 

ঘুর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে সাগরের পানি বৃদ্ধি পেয়ে কুতুবদিয়ায় ঢুকছে জোয়ারের পানি। উপজেলার দক্ষিণ প্রান্তে  তাবালের চরে বেশ কয়েকটি স্থানের ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে শুক্রবার(৩ মে) বিকাল থেকেই সাগরের পানি ভিতরে প্রবেশ করে নিম্নাঞ্চল তলিয়ে গেছে।

অপর দিকে ঘুর্ণিঝড় ফণীর প্রভাব দ্বীপেও পড়ার আশঙ্কায় উপকুলবাসী নিরাপত্তার ঝুঁকিতে রয়েছে। প্রশাসনও সর্বাত্বক সতর্ক অবস্থানে মনিটরিং সেল, কন্ট্রোল রুমে সার্বক্ষণিক নজরদারি সহ মাইকিং করছে। যাত্রীদের নিরাপত্তার স্বার্থে দুপুর থেকেই চ্যানেল পারাপারে সব ক’টি জেটিঘাটে পারাপার বন্ধ করে দেন প্রশাসন।

উপজেলার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সাইক্লোন শেল্টার, ইফাদ কিল্লা, হাসপাতাল খোলা রাখার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।।সম্ভাব্য দুর্যোগ মোকাবেলায় শুকনো খাবারও মজুদ রাখা হয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা সৌভ্রাত দাশ বলেন, দুর্যোগ মোকাবেলায় করনীয় সব কিছুই প্রস্তুত। শুকনো খাবার সহ আনুসাঙ্গিক দ্রব্যাদি মজুদ করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপক কুমার রায় বলেন, ঘুর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে জানমালের নিরাপত্তা সহ দুর্যোগ মোকাবেলায় সার্বিক প্রস্তুতি রয়েছে। ভাঙা বেড়িবাঁধ এলাকা পরিদর্শন করা হয়েছে। স্থানীয়দের সতর্ক অবস্থানে রাখার নির্দেশনা সহ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার কথাও জানান তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ: কুতুবদিয়ায়, ঘুর্ণিঝড় ফণীর, পানি ঢুকছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − two =

আরও পড়ুন