উখিয়া-টেকনাফে থ্রিজি-ফোরজি নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনায় স্থানীয়রা

fec-image

কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ এলাকার অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থ্রিজি ফোরজি সেবা বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। কিন্তু রোহিঙ্গা ক্যাম্প ছাড়াও দুই উপজেলায় পুরো এলাকায় থ্রিজি-ফোরজি সেবা বন্ধ করে দেয় নেটওয়ার্ক কোম্পানী গুলো। এ নিয়ে স্থানীয়রা গত ৪দিন ধরে নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনায় পড়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার উখিয়ার বিভিন্ন স্থান ঘুরে এমন তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, গত সোমবার রাত ১০টায় বিটিআরসি উখিয়া-টেকনাফ রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় সব মোবাইল ফোন অপারেটরদের থ্রিজি-ফোরজি বন্ধের নির্দেশনা পাঠায়। নির্দেশনা অনুযায়ী মঙ্গলবার রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকাসহ তৎসংলগ্ন এলাকায় থ্রিজি ও ফোরজি মোবাইল ডেটা বন্ধ করে দেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে বিটিআরসি গত ২ সেপ্টেম্বরে অপারেটরদের সঙ্গে এক বৈঠকের পর বিকাল ৫টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত উখিয়া-টেকনাফ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থ্রিজি ও ফোরজি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। বিটিআরসি চিঠিতে রোহিঙ্গারা যাতে মোবাইল ফোন সেবা না পেতে পারে সে বিষয়ে অপারেটরদেরকে নির্দেশনা দেন।

স্থানীয় পালংখালী এলাকার গণমাধ্যমকর্মী নুরুল বশর অভিযোগ করে জানায়, মঙ্গলবার থেকে তারা সব ধরনের নেটওয়ার্ক কোম্পানির থ্রিজি-ফোরজি সেবা থেকে বঞ্চিত। রোহিঙ্গার কারণে এমনিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি আমরা এটি নতুন করে আরেক বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছি।

উখিয়া নিউজ.ডট কমের সম্পাদক ওবাইদুল হক চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন, কোন নেটওয়ার্ক কোম্পানীর থ্রিজি-ফোরজি না থাকায় গত ৪ দিন ধরে নিউজ আপডেট দিতে পারছিনা। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সমস্যার সম্মূখীন হচ্ছেন বলে জানায় সে।

রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকা পালংখালী ইউপি চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, মঙ্গলবার সকাল থেকে আমার এলাকায় কোনো প্রকার থ্রিজি-ফোরজি নেটওয়ার্ক নেই। যার ফলে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উপাত্ত থেকে বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি নানানবিধ দুর্ভোগে পড়েছে স্থানীয়রা।

নেটওয়ার্ক কোম্পানী রবি আজিয়াটা লিমিটেডের হেড অফ কর্পোরেট এন্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়াস শাহেদ আলম বলেন, বিটিআরসি থেকে আমাদেরকে বলা হয়েছে উখিয়া-টেকনাফে থ্রিজি-ফোরজি বন্ধ রাখতে। (জিওগ্রাফি) ভৌগলিকভাবে এ দুই উপজেলায় রোহিঙ্গা ও স্থানীয়দের বসবাস কাছাকাছি হওয়ার ক্যাম্প এলাকাসহ সব স্থানে রবি’র থ্রিজি-ফোরজি নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখা হয়েছে।

উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, বিটিআরসি থেকে প্রেরিত চিঠিতে বলা হয়েছিল রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থ্রিজি-ফোরজি সেবা বন্ধ রাখতে। কিন্তু নেটওয়ার্ক কোম্পানি গুলো বলছে উখিয়া-টেকনাফ পুরো এলাকা নেটওয়ার্ক বন্ধ রাখতে বলছে বিটিআরসি। তবে এ ধরনের কোন নির্দেশনা আমি এখনো পায়নি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

9 − 9 =

আরও পড়ুন