কক্সবাজারে ৮উপজেলায় ৮শত বেডের পৃথক কোয়ারেন্টাইন হচ্ছে

fec-image

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কক্সবাজার জেলার ৮ উপজেলার প্রত্যকটিতে কমপক্ষে একশ’ বেড সম্পন্ন সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন প্রস্তত করা হচ্ছে।

প্রতিটি উপজেলার অপেক্ষাকৃত নিরাপদ, স্বাস্থ্য ও পরিবেশসম্মত স্থানে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন প্রস্তত করার দ্রুত ভবন রিকুইজিশন দিতে ৮ উপজেলার ইউএনও-দের কাছে ইতোমধ্যে পত্র পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

বুধবার (২৫ মার্চ) মধ্যে প্রতিটি উপজেলায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন প্রস্তত করে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনকে অবহিত করার কথা রয়েছে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা স্বাক্ষরিত এবিষয়ে একটি পত্র জেলার ৮টি উপজেলার ইউএনও-দের কাছে প্রেরণ করা হয়েছে।

জরুরী ভিত্তিতে প্রেরিত উক্ত পত্রে বলা হয়েছে, কমপক্ষে ১শ’ বেডের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইন তৈরীর জন্য এক বা একাধিক ভবন রিকুইজিশন করতে হবে। ২৫ মার্চ বুধবারের মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইন সম্পূর্ণ প্রস্তত করতে হবে।

যেসব ব্যক্তি নির্ধারিত সময় পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকছেন না, জেলা ও উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির পরামর্শ সাপেক্ষে তাদেরকে প্রস্তুতকৃত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে স্থানান্তর করা হবে। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে থাকা ব্যক্তির খাওয়া দাওয়ার ব্যয় নিজেকেই বহন করতে হবে। তবে থাকার জন্য কোন টাকা দিতে হবেনা।

সংশ্লিষ্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এর সাথে পরামর্শ করে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে চিকিৎসক, চিকিৎসা সামগ্রী ইত্যাদি নিশ্চিত করতে পত্রে বলা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার, হোম কোয়ারেন্টান
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 + five =

আরও পড়ুন