চকরিয়ায় বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ; ধর্ষক গ্রেপ্তার

fec-image

কক্সবাজার চকরিয়ায় কিশোরীকে ধর্ষণ ও পরে সন্তান প্রসবের ঘটনায় আবদুস ছফুর (৩০) নামের অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত ধর্ষক আবদুস ছফুর উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডস্থ ডিককূল এলাকার এজাহার আহমদের ছেলে।

বুধবার (৩১ জুলাই) দুপুর দেড়টার দিকে লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের ছিকলঘাট স’মিল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ডিককূল এলাকার এজাহার আহমদের ছেলে আবদুস ছফুর ও একই এলাকার এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে কয়েকবার দৈহিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। একপর্যায়ে কিশোরিটি গর্ভবতী হয়ে পড়ে।

কিশোরী তার গর্ভবতীর বিষয়টি আবদুস ছফুরকে জানালে সে তাকে তার সঙ্গে কালক্ষেপন করতে থাকে। এরই মধ্যে কিশোরী এক মাস পূর্বে তার নিজ বাড়ীতে এক ছেলে সন্তান প্রসব করে। কিশোরি কুমারীর ঘরে সন্তান হওয়ায় এলাকায় আলোচনা ও সমালোচনা ঝড় বইতে থাকে।

ওই সময়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে আবদুস ছফুর তার এলাকার জনপ্রতিনিধি ও কিছু ব্যাক্তিকে নিয়ে সালিশ বৈঠকের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। সালিশ বৈঠক না করে স্ত্রী ও সন্তানকে স্বীকৃতি না দিয়ে কিছু টাকা পয়সা দিয়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে চেষ্টা করে ধর্ষক ও তার পরিবার। পরে কিশোরী এ ঘটনায় বাদী হয়ে কক্সবাজার শিশু ও নারী নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আসামীকে মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পাঁচ মাস পর বুধবার দুপুরের দিকে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) আবদুল বাতেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ধর্ষক আবদুস ছফুরকে গ্রেপ্তার করে।

চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এ.কে.এম সফিকুল আলম চৌধুরী জানান, পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ধর্ষণ মামলার এক আসামীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে। তবে গ্রেপ্তারকৃত ধর্ষণকারী ওই সন্তানের পিতা কিনা তা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ডিএনএ টেষ্টের একটি আবেদন পাঠানো হবে। ধৃত আসামীকে বৃহস্পতিবার আদালতে প্রেরণ করা হবে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার, চকরিয়া, ধর্ষণ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 2 =

আরও পড়ুন