জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় সরকার যে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারে: পার্বত্যমন্ত্রী

fec-image

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন, সৃষ্টিকর্তার সব চাহিদার একটি হলো সকল প্রাণীর জন্যই পানি। আমাদের দেশ নদীমাতৃক দেশ। পানি বেশি হলেও বন্যা কম হলেই খড়া। কিন্তু সুপেয় পানির জন্য পার্বত্য অঞ্চলের সকল উৎসগুলোকে বাঁচাতেই হবে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় সরকার যে কোন সিদ্ধান্ত নিতেও পারে।

শনিবার (১৭ আগস্ট) পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এর ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলে টেকসই পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা’ উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর অবদান স্মরণীয়। তাঁর প্রতি জানাই বিনম্র শ্রদ্ধা। তাঁর কারণে আজকে পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে অবদান রাখা সম্ভব হচ্ছে। তিনি বর্তমান দেশ উন্নয়নশীল উল্লেখ করে বলেন, আমেরিকার মতো দেশ বলেছিল বাংলাদেশ তলাবিহীন ঝুড়ি, ভিক্ষুকের দেশ। কিন্তু এখন তারাই বলছে যদি উন্নয়ন চাওতো বাংলাদেশের শেখ হাসনিার কাছে যাও। আর এটি হলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে।

কাপ্তাই হ্রদের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখন যে অবস্থা এভাবে চলতে থাকলে আগামীতে হ্রদের পানিও ব্যবহার করা যাবে না। সুতরাং সবাইকেই সচেতন হতে হবে। জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় সরকার যে কোন সিদ্ধান্ত নিতেও পারে।

পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক দলগুলোর কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে এতো বিপদ হয়েছে কোন দিন কি তাঁরা এক বস্তা চাউল বা ধান কাউকে দিতে পেরেছে কিংবা দিয়েছে কি। অথচ সকল উন্নয়ন কাজে তাদের বাধা। খুন খারাবির কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে অস্ত্র যা ছিল সবগুলো ৯৭ সালে জমা হয়ে গেছে, এখন যা আছে সেগুলো অবৈধ। তাই সবাই ঐক্য থাকুন যে কোন অপশক্তি ধ্বংস করা যাবে। কিন্তু জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় সরকার যে কোন সিদ্ধান্ত নিতেও পারে।

সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার এমপি বলেন, এখানে সাংবিধানিক অধিকার এই নয় যে, চাঁদাবাজি আর খুনখারাবি করা। তাদের সকল কাজ হলো আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করা। তিনি বলেন, সকল উন্নয়নে বাধা হলো অবৈধ অস্ত্র, সেগুলো উদ্ধার করতে হবে। জুম্ম জনগনকে বিপদে ঠেলে দিয়ে উনারা আবার তাদের অধিকারের কথা বলছেন।

তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বাংলাদেশের একটি অংশ। সেই সাথে পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়ন করতে হবে এবং সকলকেই মিলে বিড়ালের গলায় ঘন্টাও বাঁধতে হবে। সমস্যার মধ্য থেকেই সমাধান বের করতে হবে।

এ সময় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এর চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি’র সভাপতিত্বে সেমিনারে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মেসবাহুল ইসলাম, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ, রাঙ্গামাটি পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর কবিরসহ সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন।

শুরুতেই প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন, ড. সঞ্জিব কুমার বুচার ও মোঃ শহিদুল ইসলাম। সেমিনারে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড এর ভাইস-চেয়ারম্যান মোঃ শাহীনুল ইসলাম (যুগ্ম সচিব)।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × five =

আরও পড়ুন