তিন পার্বত্য জেলায় গুইমারা কলেজের চমক

12417716_787576548037989_928091643395617792_n

নিজস্ব প্রতিনিধি:

ডাচ বাংলা ব্যাংক ও প্রথম আলোর সৌজন্যে লেকার্স পাবলিক স্কুল ও কলেজে অনুষ্ঠিত গণিত উৎসব-২০১৬ তে তিন পার্বত্য জেলার (খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবান) এর মধ্যে প্রথম বারের মত অংশ গ্রহণ করে চমক দেখিয়েছে খাগড়াছড়ির গুইমারর উপজেলায় সেনাবাহিনী পরিচালিত গুইমারা কলেজ ও শহীদ লে. মুশফিক বিদ্যালয়।

গত ১৫ই জানুয়ারি রাঙ্গামাটিতে অনুষ্ঠিত গণিত উৎসবে গুইমারা কলেজের প্রভাষক অর্জন নাথের নেতৃত্বে শিক্ষার্থীরা অংশ গ্রহণ করে। প্রায় সোয়া এক ঘণ্টার লিখিত পরিক্ষায় গুইমারা কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী ছাত্র ইকবাল হাসান প্রথম রানার্স আপ হওয়ার গৌবর অর্জন করে।

এর আগে রাঙ্গামাটি লেকার্স পাবলিক স্কুল ও কলেজে অনুষ্ঠিত গণিত উৎসবে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন অত্র কলেজের অধ্যক্ষ মো. আব্দুল মতিন। এ সময় রাঙ্গামাটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আহসান উল্লাহ, বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির একাডেমিক কাউন্সিলর মাহমুদুল হাসান অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। উৎসবে শিক্ষার্থীদের মাঝে মুখস্ত ও মিথ্যাকে (না) বলার শপথ করানো হয়। এ উৎসবের প্রধান আকর্ষণ ছিল শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন উত্তর পর্ব। এ পর্বে গুইমারা কলেজের শিক্ষার্থী মো. জুনাইদুর রহমান, পপি ত্রিপুরা, ইকবাল হাসানসহ বেশ কজন অংশগ্রহণ করেন।

এ বিষয়ে গুইমারা কলেজের অধ্যক্ষ মো. নাজিম উদ্দিন শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, আজকের এ সাফল্য গুইমারা কলেজের, এ সাফল্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের। এ ধারা অব্যহত রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর। এ সময় প্রথম বারের মত এইচএসসি ফাইনালে গুইমারা কলেজে নুন্যতম ৫০টি জিপিএ-৫ থাকবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এদিকে গুইমারা কলেজের এমন সাফল্যে অত্র কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও পৃষ্ঠপোষক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. তোফায়েল আহাম্মেদ সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন। এ সময় তিনি সকল প্রভাষক ও শিক্ষার্থীদের অত্র কলেজের সুনাম অক্ষুন্ন রাখার আহবান জানান।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের জুন মাসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ আর্টিলারী ব্রিগেড় গুইমারা রিজিয়নের উদ্যোগে অত্র কলেজটি প্রতিষ্ঠত হয়। সেনাবাহিনীর চট্টগ্রাম এরিয়া কমান্ডার (জিওসি) মেজর জেনারেল মো. শফিকুল ইসলাম এর আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন করেন। মাত্র ৭ মাসের মধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলায় এ কলেজের সুনাম ছড়িয়ে পড়ে। ইতিমধ্যেই চট্টগ্রাম শিক্ষা বিভাগের বিভিন্ন কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা এ কলেজের পাঠদানসহ নানান বিষয় অনুধাবনে ছুটে আসতে দেখা গেছে। বিশিষ্ট শিক্ষাবীদদের মতে এ কলেজটি একদিন দেশ সেরা কলেজের মডেল হতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × 3 =

আরও পড়ুন