নাইক্ষ্যংছড়িতে ভর্তুকির সার তামাকে গেলে কঠোর ব্যবস্থা : ইউএনও সাদিয়া

fec-image

নাইক্ষ্যংছড়িতে তামাক চাষে প্রচলিত আইন অনুসরণ ও মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের নিরুৎসাহিত করণ সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া আফরিণ কচি বলেছেন, উপজেলার কোথাও ভর্তুকির সার যেন তামাক চাষে না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। এসময় শিশুদের তামাক চাষে ব্যবহার না করা, তামাক চুল্লিতে কাঠ না পুড়ানো, নদী বা খালের তীরবর্তী ৫০ ফুটের মধ্যে তামাক চাষ বা তামাকের বীজতলা না করার  নির্দেশ দেন।

বুধবার (৬ নভেম্বর) সকালে ১০টায় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, তামাক চাষ আর বেশি দিন নয়। সরকারও এ চাষ করতে ধীরে ধীরে নিরুৎসাহিত করছেন। তবু বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত তামাক চাষ করতে আইন মানতে হবে তামাক কোম্পানী ও তামাক চাষিকে। বিশেষ করে কয়েকটি আইন তাদের সব সময় খেয়াল রাখতে হবে।

সভায় উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি শাহ সিরাজুর রহমান সজল বলেছেন, তামাক চাষিরা স্থানীয় ডিলারদের কাছ থেকে সার না পেলে রামু উপজেলা বা বাহির থেকে সংগ্রহ করেন। তাই ভর্তুকির সার তামাক চাষে ব্যবহার বন্ধে এক যোগে বান্দরবান এবং কক্সবাজারের যাবতীয় সার বিক্রেতাদের সজাগ রাখার উদ্যোগ নিতে হবে। আর তামাক কোম্পানী গুলো যেন তাদের কৃষকদের ইউরিয়া সারের জন্যে টাকা না দিয়ে সরাসরি সার দেন তারও দাবি জানান এ বক্তা।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মো: ইমরান মেম্বার বলেন, দেশীয় আইন মেনেই তামাক চাষ চায় এলাকার মানুষ। না হয় পরিবেশ ধ্বংস হবে।

উপজেলা হাসপাতাল প্রধান (টিএইচও) ডা: আবু জাফর মো. সেলিম বলেন, তামাকে নাগরিকের ভয়ানক  রোগ হচ্ছে। বিশেষ করে ক্যান্সার, হৃদরোগ সহ ৮টি বড় রোগের ঝুকিঁ থাকে। নদীর মাছ ধ্বংস হচ্ছে তামাক চাষের বিষে। তাই তামাক আর নয়। তামাক চাষ বাদ দিয়ে বিকল্প চাষে পা দিতে হবে।

সভায় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন থানার ওসি (তদন্ত) কানন চৌধুরী, উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান মংহ্লা র্মামা, উপজেলা কৃষি অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) আবুল কুদ্দুস, নাইক্ষ্যংছড়ি প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা সাংবাদিক মাঈনুদ্দিন খালেদ, উপজেলার বৃটিশ-আমেরিকান টোব্যাকো, আবুল খায়ের টোব্যাকো ও জাপান টোব্যাকো কোম্পানীর প্রতিনিধি, হেডম্যান কারবারী প্রতিনিধি, কৃষি অফিসের সকল কর্মকর্তা ও উপ-সহকারী কর্মকর্তাগণসহ সংশ্লিষ্টরা এতে উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × one =

আরও পড়ুন