নানিয়ারচরে ৩০ হাজার পিস আনারস ধ্বংস!

fec-image

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় ৩০ হাজার পিস আনারস জব্দ করে ধ্বংস করেছে উপজেলা প্রশাসন। অপরিপক্ক আনারস ঔষুধ দিয়ে পাকানোর অভিযোগ এগুলো ধ্বংস করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১৪ মে) রাতে উপজেলায় বগাছড়ি সতের মাইল জিতেন পাড়া ও উনিশ মাইল এলাকার দুটি বাগান থেকে এসব আনারস জব্দ করে উপজেলা কার্যালয়ে এনে ধ্বংস করা হয়। তবে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

নানিয়াচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাব্বির হোসেন বলেন, কিছু ব্যবসায়ী অতি মুনাফার লোভে অপরিপক্ক আনারস ওষুধ দিয়ে পাকিয়ে তা ঢাকায় বিক্রির জন্য নিয়ে যাচ্ছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করি এবং ৩০ হাজার পিস আনারস জব্দ করি।

তবে ব্যবসায়ীকে হাতে নাতে ধরতে না পারলেও তার পরিচয় জানা সম্ভব হয়েছে। যতদিন আনারসের মৌসুম থাকবে ততদিন আমাদের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

নানিয়ারচর মৌসুমী ফল ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেডের সাধারণ সম্পাদক মো. মনির হোসেন বলেন, করোনার এই মহামারীর সময় যারা এমন কাজ করতে পারে তারা মানুষ হতে পারে না। মাত্র কয়েক জনের কারণে আনারস চাষি ও প্রকৃত ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রশাসনের কাছে আমাদের অনুরোধ এসব যারা করে তাদের যাতে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসে।’

নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলি রহমান তিন্নী জানান, ‘কিছু আনারস ব্যবসায়ী একেবারে অপরিপক্ক আনারস বিভিন্ন ক্যামিকেল মিশিয়ে পাকিয়ে তা ঢাকায় বিক্রিয় জন্য নিয়ে যাচ্ছিলো। এ সময় আমরা ট্রাকসহ আনারস জব্দ করি।

ট্রাক চালকের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারলাম ক্যামিক্যাল মেশালে দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে আনারসগুলো পেকে যায়। এর সঙ্গে জড়িত ব্যবসায়ীরা হলো শাহ জাহান ও মোস্তফা মিয়া। তাদের আটকের জন্য পুলিশ খোঁজ খবর নিচ্ছে।

কৃষি অফিসের তথ্যমতে এ বছর ২১৫০ হেক্টর জমিতে আনারস চাষ হচ্ছে। যার একটি বড় অংশ জেলার নানিয়ারচর উপজেলায়। এবছর বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা প্রায় ৫০ কোটি টাকার মতো।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 3 =

আরও পড়ুন