পানছড়ির পোষমানা সজারু

fec-image

পানছড়ি উপজেলার বড় সাঁওতাল পাড়া (প্রদীপ পাড়া)’য় লোকালয়ে মনের মতো ঘুরে বেড়ায় পোষমানা সজারু। এটি পাহাড়ি এলাকায় বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মাঝে ভিন্ন নামে পরিচিত। চাকমা সম্প্রদায়ে খুদুক, মারমায় প্রু, ত্রিপুরায় মাসুংদুই ও সাঁওতাল সম্প্রদায়ে ঝিন্ক নামেই পরিচিত। সজারুটি দেখতে চেংগী নদী পার হয়ে নিত্য ছুটে দর্শনার্থী।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সামাই সাঁওতালের বাড়ির ওপার-ওপার দৌড়ে বেড়াচ্ছে সজারু ছানাটি। তার চলার পথে কেউ বাধা দিলেই পুরো গা জুড়ে মেলে দেয় শতাধিক কাটা। সামাই সাঁওতালের ছেলে বর্ষ সাঁওতাল জানায়, সব ধরণের খাবার দিলেই খায়। তবে বাঁশকুড়ল, ভাত, দুধ এসব বেশী পছন্দ করে।

সামাই সাঁওতালের স্ত্রী জবা জানায়, গত ভাদ্র মাসে (তিন মাস আগে) জঙ্গলে তরকারি খুঁজতে গিয়ে সজারুর ছানাটিকে পানিতে পড়ে থাকতে দেখে বাড়িতে নিয়ে আসি। সেই ছোট্ট প্রাণীটি আজ অনেক বড়ো হয়েছে। ঘরের এক কোনে বিছিয়ে দেয়া খড়ে মন চাইলে ঘুমায়। তবে দিনে রাতে বেশীর ভাগ সময়ে পুরো বাড়ি ঘুর ঘুর করে বেড়ায়। বর্তমানে প্রাণীটি আমাদের পরিবারের সদস্যর মতো। সবাই তাকে আদর করে। গায়ে হাত বুলিয়ে দিলে মনের আনন্দে ঘুমায়।

এ ব্যাপারে খাগড়াছড়ি জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মো: নুরুল আফসার বলেন, এই প্রাণী তো লোকালয়ে পোষ মানার কথা না। এটার গায়ের কাটাগুলো খুবই বিপদজনক। এর থেকে দুরে থাকাই ভালো। এটি গহীন জঙ্গলের গর্তে থাকে বলে তিনি জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen + eleven =

আরও পড়ুন