পানছড়ি বাজারে বিশালাকার মাশরুম

fec-image

পানছড়ি বাজারে প্রায় চার কেজি ওজনের বিশালাকার মাশরুম নিয়ে এসেছে এক কৃষক। এই মাশরুমটি এক নজর দেখতে জমে উঠে উৎসুক দর্শনার্থীর উপচে পড়া ভীড়।

রবিবার (১৭ নভেম্বর) সকাল দশটায় এক ফাঁকে কথা হয় মাশরুম বিক্রেতা তালতলা গ্রামের বিশ্বনাথ দেওয়ানের সাথে। সে জানায়, বাড়ির পাশে পঁচে যাওয়া একটি বাঁশের মুড়া থেকে বছর দুয়েক ধরে বের হচ্ছে মাশরুম। এটাকে স্থানীয় ভাষায় বাসউল বলা হয়। শ্রাবণ মাসে এর ফলন বেশী বলে তিনি জানান। কেজি বিক্রি করছেন তিনশত বিশ টাকা দরে।

কয়েকজন উৎসুক দর্শনার্থী জানালেন পারবো বাঁশ তথা ওঝা বাঁশের পঁচা গোড়া থেকেই এ সবের জন্ম। তবে সব স্থানে হয় না। কৃষক বিশ্বনাথ দেওয়ান জানালেন এ পর্যন্ত প্রায় আট হাজার টাকার মতো বিক্রি করেছেন কোন ধরণের পূঁজি ছাড়াই। ছোট ছোট আকারের আরো কিছু রয়েছে যা মাস খানেকের মধ্যে বাজারজাত করা যাবে।

পানছড়ির উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা অরুণাংকর চাকমা জানান, সাভার জাতীয় মাশরুম কেন্দ্রে এ সবের কোন জাত নাই। এগুলো প্রাকৃতিক ভাবেই জন্মে। তবে সব মাশরুম খাওয়া যায়না। প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেয়া কিছু কিছু মাশরুম খাওয়া বিপদজনক।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ডা: সনজীব ত্রিপুরা জানান, অনেক মাশরুম বিষাক্ত থাকে। এটা কোন জাতের তা বলতে পারছিনা। তবে এতো বড়ো সচরাচর দেখা যায়না।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা, দর্শনার্থী, মাশরুম
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

আরও পড়ুন