খাগড়াছড়িতে “নারীর জীবন, স্বাস্থ্য ও ভবিষ্যত” প্রকল্পের উদ্বোধন

পার্বত্য চট্টগ্রামকে পরিকল্পিতভাবে কাজে লাগানোর সম্ভাবনার কথা বললেন ইইউ রাষ্ট্রদূত

fec-image

বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অ্যাম্বাসেডর রেনসি তিরাইংক পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক সম্পদ পরিকল্পিত ভাবে কাজে লাগানো গেলে পর্যটন খাতের বিকাশসহ আর্থসামাজিক অবস্থার বিকাশ ঘটবে বলে মন্তব্য করেছেন।

বুধবার (২৭ নভেম্বর) সকালে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও সিমাভি নেদারল্যান্ডস এর অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন।

অ্যাম্বাসেডর আরও বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে এমডিজি’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশ এগিয়ে ছিল। নারী ও শিশু স্বাস্থ্য ও শিক্ষাসহ অন্যান্য সূচকের সে ধারাবাহিকতা রক্ষা করলে এসডিজি’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে কোন বাধা থাকবে না।

তিনি ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও সিমাভি নেদারল্যান্ডস-এর অর্থায়নে তিন পার্বত্য জেলায় নারীর স্বাস্থ্য ও মাসিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন এবং নারীর প্রতি নির্যাতন বন্ধে ৫ বছর মেয়াদী “আওয়ার লাইভস, আওয়ার হেলথ ও আওয়ার ফিউচারস” প্রকল্প বাস্তবায়নে সকলের সহযোগিতা চান।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহা: আহমার উজ্জামান ও বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘের নির্বাহী পরিচালক রোকেয়া কবীর।

সেমিনারে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, হেডম্যান-কারবারি এসোসিয়েশনের প্রতিনিধি, সিমাভি নেদারল্যান্ডস-এর প্রতিনিধি, বিএনপিএস ও প্রকল্পের সহযোগী সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সেমিনারে প্রকল্পের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত করে বলা হয়, বিএনপিএস ১৯৮৬ সাল থেকে নারী-পুরুষের সমতা প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করে আসছে। অধিকার ভিত্তিক বেসরকারী উন্নয়ন প্রতিষ্ঠান হিসেবে বিএনপিএস তৃণমুল নারী-পুরুষদের সংগঠিত ও সচেতন করে তাদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি জাতীয় পর্যায়ে সংশ্লিষ্ট আইন, নীতি পদ্ধতিকে নারী ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সহায়ক করে তুলতে সক্রিয় ভূমিকা রাখে।

এরই ধারাবাহিকতায় ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও সিমাভি নেদারল্যান্ডস-এর অর্থায়নে বিএনপিএস তিন পার্বত্য জেলায় নারীর স্বাস্থ্য ও মাসিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন এবং নারীর প্রতি নির্যাতন বন্ধে আওয়ার লাইভস, আওয়ার হেলথ ও আওয়ার ফিউচারস প্রকল্পের ৫ বছর মেয়াদী কার্যক্রম সহযোগি সংগঠনের মাধ্যমে বাস্তবায়ন শুরু করেছে।

এদিকে একই দিন দুপুরে বাংলাদেশে নিযুক্ত অষ্ট্রেলিয়ার হাই কমিশনার মিজ জুলিয়া নিবলেট খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী ও জেলা প্রশাসনের সাথে সাক্ষাত করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

17 + 5 =

আরও পড়ুন