‘পাহাড়ে শান্তি, সম্প্রীতি ও ঐক্য প্রতিষ্ঠায় একযোগে কাজ করতে হবে’

fec-image

গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএসএম রিদোয়ানুর রহমান ১৫ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারীর বিভিন্ন অর্জনের কথা তুলে ধরে বলেছেন, মাটিরাঙার শান্তি-সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায়ও এ ইউনিট নিজের সাফল্যের ধারাবাহিকতা রক্ষা করবে। তিনি বলেন, আমরা যার যার জায়গা থেকে শান্তি, সম্প্রীতি ও ঐক্য প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করছি। এ প্রচেষ্টাকে এগিয়ে নিতে গণমাধ্যমকর্মীদের সচেষ্ট থেকে কাজ করতে হবে। সেনাবাহিনীর উদ্যোগ গুলো সাধারণ মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে।

রোববার (২৪ অক্টোবর) দুপুরের দিকে মাটিরাঙ্গা জোন সদরে ১৫ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারীর ৪৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দুপুরের দিকে আমন্ত্রিত অতিথিরা একে একে উপস্থিত হয়ে জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল ওয়ালিদ মোহাম্মদ সাইফুল্লাহর হাতে ফুলের তোড়া ও উপহার দিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানান। দিবসটি উপলক্ষে পুরো জোন সদরে ছিলো সাজ সাজ রব। পরে আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে নিয়ে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কেক কাটেন প্রধান অতিথি গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএসএম রিদোয়ানুর রহমান।

বর্নিল এ অনুষ্ঠানে লক্ষীছড়ি জোনের জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল রাশেদুজ্জামান রাশেদ পিএসসি.জি, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক, মাটিরাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আলী, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য হিরন জয় ত্রিপুরা ও মাটিরাঙ্গা সরকারী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ প্রশান্ত কুমার ত্রিপুরা ছাড়াও সামিরক-বেসামরিক কর্মকর্তা ও গনমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৭৫ সালের ২৪ অক্টোবর রংপুর সেনানিবাসে তৎকালীন ৭ম জেআরবি ব্যাটালিয়নকে নতুন আঙিকে ১৫ রেজিমেন্ট আর্টিলারী হিসেবে গঠন করা হয়। লে. কর্নেল সরদার মো. আলী হাসান ১৫ রেজিমেন্ট আর্টিলারীর প্রথম অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বিগত ৪৫ বছরে এ ইউনিট ৬টি ফরমেষনে অর্পিত দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে সম্পন্ন করে। ইতিপুর্বে এ ইউনিট পার্বত্য চট্টগ্রামে তিনবার সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে।

গ্লোরিয়স ফিফটিন ‘অপারেশন দাবানল’ ‘অপারেশন উত্তোরণ’ ‘অপারেশন ক্লিহার্ট’ ‘অপারেশন আলোর সন্ধানে’ ‘অপারেশন রেবেল হান্ট’ ‘অপারেশন নবযাত্রা’ ‘জাতীয় সংসদ নির্বাচন’ ও ‘অপারেশন কোভিড শীল্ড’ এর আওতায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তাসহ অর্পিত দায়িত্ব সফলতার সাথে পালন করে।

ঐতিহ্যবাহী এ ইউনিট ২০০৯ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দক্ষিন সুদানে জাতিসঙঘ শান্তিরক্ষা মিশনে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে। ধারাবাহিক সাফল্যের অংশ হিসেবে এ ইউনিট ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল সেনাবাহিনী প্রধানের নিকট থেকে রেজিমেন্ট কালার অর্জন করে। সর্বমেষ এ ইউনিনট ২০২১ সালের ১৮ মে গুইমারা রিজিয়নের অধীন মাটিরাঙ্গা জোনের দায়িত্বভার গ্রহণ করে।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 5 =

আরও পড়ুন