বঙ্গবন্ধু আমাদের আদর্শ ও বিশ্বাসের ঠিকানা: কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা

fec-image

বঙ্গবন্ধু আমাদের আদর্শ ও বিশ্বাসের ঠিকানা। রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ আমাদের সোনালী ভবিষ্যৎ। তাই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের অভিযাত্রায় অতীতের গৌরবময় ভূমিকার মতোই দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবে যুবলীগ।

খাগড়াছড়িতে বুধবার (১১ নভেম্বর) সকালে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি এসব কথা বলেন।

জেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি যতন কুমার ত্রিপুরার সভাপতিত্বে দলীয় অফিসে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, বেলুন উড়ানোসহ নানা আয়োজনে পালিত হয়েছে যুবলীগের ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী।

জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কে এম ইসমাইল হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রণ বিক্রম ত্রিপুরা, সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু চৌধুরী, কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া, মণির হোসেন খাঁন, সংগঠনিক সম্পাদক দিদারুল আলম, পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য মংক্যাচিং চৌধুরী, পার্থ ত্রিপুরা জুয়েল ও শতরুপা চাকমা।

কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে তাঁর ভাগ্নে শেখ ফজলুল হক মনির নেতৃত্বে ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এক যুব কনভেনশনের মাধ্যমে সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে। অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক ও শোষণমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে যুবসমাজকে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্য নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় এই সংগঠন। গত এক যুগে সংগঠনটি দেশের গুরুত্বপূর্ণ নানা লড়াই-সংগ্রামে ভূমিকা রেখেছে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শের আদলে অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক ও শোষণমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে যুবসমাজকে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্য নিয়েই প্রতিষ্ঠিত হয় এই সংগঠন। গত কয়েক দশকের বেশি সময় ধরে দীর্ঘ লড়াই-সংগ্রাম ও হাজারো নেতাকর্মীর আত্মত্যাগের মাধ্যমে যুবলীগ আজ দেশের সর্ববৃহৎ যুব সংগঠনে পরিণত হয়েছে।

এর প্রতিষ্ঠাকালীন চেয়ারম্যান ছিলেন শেখ ফজলুল হক মনি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালো রাতে বঙ্গবন্ধুর সাথে নিহত হন। প্রতিষ্ঠার পর থেকে জাতীয় রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বাংলাদেশ যুবলীগ। স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে সাহসী ভূমিকা রাখে এই যুব সংগঠনটি।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে দেশ পুনর্গঠনসহ ইতিহাস অর্পিত সকল দায়িত্ব অত্যন্ত নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে পালন করে আসছে যুবলীগ।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের পাঁচ বছরের অপরাজনীতি, দুঃশাসন, দুর্নীতি ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে রাজপথের লড়াই আন্দোলন এবং ১/১১ পরবর্তী অসাংবিধানিক সরকার কর্তৃক শেখ হাসিনাকে রাজনীতি থেকে মাইনাস এবং দেশকে বিরাজনীতিকরণের ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় সকল অত্যাচার নির্যাতনকে উপেক্ষা করে সাহসিকতাপূর্ণ ভুমিকা পালন করেছে যুবলীগ। এই দীর্ঘ লড়াই-সংগ্রামে প্রাণ দিয়েছেন যুবলীগের অসংখ্য নেতাকর্মী।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা চন্দন কুমার দে, জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান হেলাল, সদর আওয়ামী যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দেলোয়ার হোসেন টিটু, পৌর আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি মো. মানিক পাটোয়ারী প্রমুখ ।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, বঙ্গবন্ধু, বিশ্বাসের
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 + 2 =

আরও পড়ুন