বাংলাদেশের তলদেশে সামুদ্রিক প্রস্তর!

fec-image

বাংলাদেশ নামক ভূখণ্ডের নীচে সমুদ্র তলদেশ খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। একে পৃথিবী নামক গ্রহের বুকে একটি অনন্য ঘটনা হিসেবে অভিহিত করেছেন তার।

বিশ্বের মহাদেশগুলোর তলদেশে সাধারণ প্রস্তর পাওয়া গেলেও বাংলাদেশের তলদেশে সামুদ্রিক প্রস্তর পাওয়া গেছে বলে নেচার ইন্ডিয়ার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন। এ ধরনের ভূতাত্ত্বিক ঘটনা তারা এই প্রথমবারের মতো প্রত্যক্ষ করলেন বলেও জানিয়েছেন।

হায়দ্রাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দলের সদস্য কল্লুর শ্রী কৃষ্ণ লিখেন, অন্তত ২৩ মিলিয়ন বছর আগে বাংলাদেশের বেশিরভাগ অংশ ছিলো সমুদ্রের নীচে। বঙ্গোপসাগরের টেকটনিক বিকাশ বোঝার জন্য কয়েক বছর ধরে চালানো গবেষণা থেকে এই ফলাফল উঠে এসেছে।

১৩২ ‍মিলিয়ন বছর আগে সুপারকন্টিনেন্ট গন্ডোয়ানা থেকে বৃহত্তর ভারত বিচ্ছিন্ন হওয়ার সময় ভারতের পূর্ব সীমান্তে নতুন সমুদ্রক্ষেত্র সৃষ্টি হয়, যাকে ‘প্রোটো বে অব বেঙ্গল’ বলা হয়। গবেষণাপত্রে বলা হয়, একসময় বর্তমান কলকাতার অবস্থান ছিলো প্রোটো বে অব বেঙ্গলের প্রতিবেশী কন্টিনেন্টাল মার্জিনের সীমান্তে। কৃষ্ণ ও তার টিম দেখেন, সাগরের তলদেশে যে ওশানিক রক জমা হয়েছে তা কলকাতা থেকে শিলং মালভূমির কাছাকাছি রাজমহল-সিলেট রেখা বরাবর ছড়িয়ে আছে।

বঙ্গোপসাগরের বিকাশ অব্যাহত থাকায় হিমালয় থেকে উৎপন্ন গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্রের বয়ে আনা বিপুল তলানীর নীচে ওই প্রাচীন ওশানিক রক পুরোপুরি চাপা পড়ে যায়। কলকাতার পূর্বদিকে এই তলানী ১৮ কিলোমিটারের বেশে পুরু, যা আজকের বাংলাদেশের বেশিরভাগ এলাকা সৃষ্টি করেছে।

সূত্র: সাউথএশিয়ানমনিটরডটকম

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: বঙ্গোপসাগর, মহাদেশ, হায়দ্রাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty − 3 =

আরও পড়ুন