‘দি ওয়ার্ল্ড বুদ্ধ শাসন সেবক সংঘের

বান্দরবান রাজবিহারের বৌদ্ধমুর্তি সীলগালা করায় প্রতিবাদ

fec-image

বান্দরবানে রাজবিহার কমিটির অনুমতি না নিয়ে রাজগুরু বিহারে হাজার বছরের সত্য বৌদ্ধমুর্তিকে সীলগালা করা, রাজবিহারে নতুন অধ্যক্ষের অভিষেক অনুুষ্ঠান সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বিহার নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র করার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন রাঙ্গামাটি জেলার ‘দি ওয়ার্ল্ড বুদ্ধ শাসন সেবক সংঘ’ বাংলাদেশ নামে একটি বৌদ্ধ সংগঠন।

বুধবার ( ২৭ মে) দুপুরে বৌদ্ধ সংগঠনটির রাঙ্গামাটি জেলা শাখা সভাপতি ডা. সজল কান্তি বড়ুয়া ও সাধারণ সম্পাদক প্রীতিময় চাকমা স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে মাধ্যমে এ তথ্য জানা যায়।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ রয়েছে, বান্দরবান রাজবিহার কমিটির অনুমতি না নিয়ে জোর পূর্বক দলীয় প্রভাব কাটিয়ে বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈহ্লা ও বোমাং রাজা উ উচপ্রু সম্মিলিতভাবে সন্ত্রাসী কায়দায় রাজবিহারের হাজার বছরের সত্য বৌদ্ধমুুর্তিকে সীলগালা করেন।

এছাড়াও রাজবিহার দখল করে বিহারের নতুন অধ্যক্ষের অভিষেক করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈহ্লা ও বোমাং রাজা উ উচপ্রু। এতে ক্ষুদ্ধ তিন পার্বত্য জেলার বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মানুষেরা।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ রয়েছে, করোনাভাইরাসের কারণে সারাদেশ লকডাউন থাকতে ‘দি ওয়ার্ল্ড বুদ্ধ শাসন সেবক সংঘ’ খিয়ংওয়া কিয়ং রাজবিহারে বৈশাখী পূর্ণিমা পালন করতে পারেনি।

যেহেতু এখন সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশে ও করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহতা বিদ্যামান রয়েছে। এই সময়ে এই অভিষেক অনুষ্ঠান করা ঠিক নয় বলে জানান তারা।

এছাড়া এই সময়ে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈহ্লা ও বোমাং রাজা উ উচপ্রু বিহারের সত্য বুদ্ধকে সীলগালা করে ও অবস্থানরত ভিক্ষু সংঘসহ মেশিলাদের ও প্রয়াত গুরু ভান্তে কর্তৃক পরিচালিত ‘বি হ্যাপী লার্নিং সেন্টারের’ অনাথ ও দুস্থ শিশুদের বিহার থেকে জোরপূর্বক বের করে দেয়।

শুধু তাই নয় তাদের ব্যবহারের সব জিনিসপত্র ছুড়ে ফেলে দেয় এবং তাদের মৃত্যুর হুমকি দেয়া হয় বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈহ্লা ও বোমাং রাজা উ উচপ্রু বৃহস্পতিবার (২৮ মে) অভিষেক অনুষ্ঠান করবে বলে বান্দরবান শহরে মাইকিং করে সর্বসাধারণকে জানিয়েছেন।

করোনা পরিস্থিতির এই ভয়াবহ দিনে এই অভিষেক অনুষ্ঠান না করার জন্য দাবি ও তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন রাঙ্গামাটি জেলার ‘দি ওয়ার্ল্ড বুদ্ধ শাসন সেবক সংঘ’ বাংলাদেশ নামে একটি বৌদ্ধ সংগঠন।

এই অনুষ্ঠান বন্ধের জন্য বিজ্ঞপ্তিতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নেতাকর্মীরা। অন্যথায় প্রয়োজনে আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এসময় বৈঠকে ‘দি ওয়ার্ল্ড বুদ্ধ শাসন সেবক সংঘ’ বাংলাদেশ, রাঙ্গামাটি জেলা শাখার উপদেষ্টা ধর্মকৃত্তি মহাথের, শান্ত লংকার থের, মংশোয়ে প্রু মারমা, সহ-সভাপতি ছোটন বড়ুয়া, সদস্য শ্যামল মিত্র চাকমা, অংশি প্রু মারমা, গোপাল বড়ুয়া, নিকাশ বড়ুয়া ও কিশোর উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস, বৌদ্ধমুর্তি, সীলাগালা
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × two =

আরও পড়ুন