বৃ‌ষ্টি‌তেও পাহাড় কন্যা বান্দরবানে পর্যটকদের ভিড়

fec-image

প্রকৃতির কোলে ঈদ আনন্দ‌ উপভোগ করতে ‘পাহাড়ি কন্যা’ খ্যাত বান্দরবানে ভিড় করে‌ছেন পর্যটকরা। ঈদের ছুটিতে তাদের উপস্থিতিতে মুখর হয়ে উঠে‌ছে প্রাকৃতিক সৌন্দ‌র্যের এই লীলাভূমি। ইতোম‌ধ্যে পর্যটকের পদচারনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে বান্দরবানের সব পর্যটন কেন্দ্রগুলো। মেঘলা, নীলাচল, শৈলপ্রপাত, চিম্বুক, নীলগিরি, নীল দিগন্ত, রেমাক্রী, নাফাকুম, দেবতাখুমসহ জেলার সবগুলো দশর্নীয় স্থানে ছু‌টে যা‌চ্ছে পর্যটক। শহ‌রের হোটেল-মোটেল রিসোর্ট গেস্ট হাউসগুলোতে হ‌য়ে‌ছে পর্যাপ্ত বু‌কিং। দীর্ঘ দিন পর প্রাণ ফি‌রে পা‌চ্ছে পর্যটন নগরী বান্দরবানের সব পর্যটন কেন্দ্রগুলো।

স‌রেজ‌মি‌নে দেখা গে‌ছে, দীর্ঘ দিন পর প্রাণ ফিরেছে পর্যটন নগরী বান্দরবানের সব পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে। ঈদের টানা ছুটিতে বৃ‌ষ্টির ম‌ধ্যেও পর্যটকরা ছু‌টে আস‌ছেন পাহাড় কন্যা খ্যাত বান্দরবানে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে অবকাশ যাপনে পর্যটকরা এখন ভিড় করছে বান্দরবানের দর্শণীয় স্থান গুলোতে। মেঘলা, নীলাচল, চিম্বুক, তমা তুঙ্গী, নীলগিরি, শৈলপ্রপাত, দেবতাকুম, নাফাকুম, রেমাক্রীসহ সব গুলো পর্যটন কেন্দ্রে এখন পর্যটকের ভীড়। সকাল থেকে পর্যটকরা পরিবার পরিজন বন্ধু বান্ধব নিয়ে চাঁদের গাড়িতে করে ঘুরে বেড়াচ্ছে এক পাহাড় থেকে আরেক পাহাড়ে। কেউবা ছুটে যাচ্ছে ঝর্ণার পানিতে গা ভেঁজাতে, কেউবা যাচ্ছে পাহাড়ের চুড়ায় মেঘ ধরতে, আবার কেউ যাচ্ছে পাহাড়ি পল্লীগুলোতে উপজাতীয়দের জীবন ধারা উপভোগ করতে।

আর মনোমুগ্ধকর এ দৃশ্যগুলো স্মৃতি হিসেবে ধরে রাখতে কেউ কেউ চলন্ত মেঘের সাথে নিজেকে ক্যামেরা বন্দী করছে, কেউবা ঝর্ণার পানির সাথে নিজেকে ক্যামেরা বন্দী করছে। কেউ উপজাতীয়দের তৈরী পোশাকে নিজেকে ক্যামেরাবন্দী করছে। এককথায় নগর জীবনের ব্যস্ততা ভুলে পর্যটকরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছে প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগে।

পর্যটকরা জানায়, বান্দরবা‌নে আমরা ঈদের ছু‌টি‌তে বেড়াতে এসেছি। আসার পর থে‌কেই বৃ‌ষ্টি। তারপরও আমরা ব‌সে থা‌কি‌নি। বৃ‌ষ্টি‌তে ভি‌জেই আমরা পর্যটন কেন্দ্রগু‌লো ঘু‌রে দেখ‌ছি। বৃ‌ষ্টি‌তে অন‌্যরকম এক আমে‌জের ছোঁয়া পা‌চ্ছি আমরা। খুবই ভাল লাগ‌ছে আমা‌দের।

এবিষ‌য়ে ঢাকা থে‌কে আসা পর্যটক লাবনী আক্তার জানান, ঈদের ছু‌টি‌তে প‌রিবা‌রের সা‌থে বেড়া‌তে এ‌সে‌ছি। আমার পর থে‌কেই বৃ‌ষ্টি। এ বৃ‌ষ্টি‌তে ঘু‌রে বেড়া‌তে অনরকম এক অনুভূ‌তি পা‌চ্ছি। খুবই মজা লাগ‌ছে।

আ‌রেক পর্যটক জাহাঙ্গীর হো‌সেন ব‌লেন, আ‌মি বান্দরবা‌নে বেড়া‌তে এ‌সে‌ছি এবারই প্রথম। এত সুন্দর বান্দরবা‌নের দৃশ‌্য কখ‌নো ভাব‌তে পা‌রি‌নি। অসাধারণ বান্দরবান।

পর্যটক ইমরান কা‌য়েস জানান, আ‌মি প‌রিবা‌রের সা‌থে মেঘলা, নীলাচল, নীল‌গি‌রিসহ বেশ ক‌য়েক‌টি পর্যটন কেন্দ্র ই‌তিম‌ধ্যে ঘু‌রে‌ছি। সবাই খুব ভালভা‌বে দৃশ‌্য উপভোগ ক‌রে‌ছি। অ‌নেক সুন্দর বান্দরবান।

তবে টানা ছুটিতে বেড়াতে আসা পর্যটকরা যাতে নিরাপদে নির্বিঘ্নে বেড়াতে পারে সেজন্য নানা পদক্ষেপ গ্রহণের কথা জানি‌য়ে ট‌্যুরিস্ট পুলিশ জোনের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আব্দুল হালিম ব‌লেন, পর্যটক‌দের জন‌্য আমরা ট‌্যু‌রিস্ট পু‌লি‌শের সকল ছু‌টি বা‌তিল ক‌রে‌ছি। পর্যটক‌দের যেন কোন সমস‌্যা না হয় সেজন‌্য আমরা সা‌র্বিক ব‌্যবস্থা গ্রহণ ক‌রে‌ছি।

জেলায় পর্যটকদের সেবায় রয়েছে শতাধিক হোটেল-মোটেল রিসোর্ট গেস্ট হাউস ছাড়াও পর্যটক পরিবহনে রয়েছে ৪ শতাধিক চাঁদের গাড়ি, সব মিলিয়ে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জেলার ২০ হাজার মানুষ পর্যটন ব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্ঠ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 1 =

আরও পড়ুন