মহেশখালীর ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে বসলো সৌরবাতি : দূর হলো দীর্ঘ আঁধার ও সড়ক ডাকাতি

fec-image

সরকারের দেওয়া সৌরবাতিতে আলোকিত হলো মহেশখালীর দীর্ঘদিনের ঝুঁকিপূর্ণ দ্বিতীয় প্রধান সড়কটি। পাহাড়ি শাপলাপুরের সড়ক জুড়ে বিভিন্ন পয়েন্টে বসানো হয়েছে অর্ধশতাধিক সৌর বিদ্যুত চালিত স্ট্রিট লাইট। এতে এ সড়কজুড়ে জেকে থাকা দীর্ঘদিনের ভুতুড়ে আঁধার সড়ক ডাকাতি কেটে উঠলো এই রাস্তায়। এ পথে যাতায়াতকারিদের মাঝেও ফিরেছে তৃপ্তির স্বস্তি।

জানা গেছে -সরকারের দেয়া বিশেষ প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যে সোলার স্ট্রিট লাইটের আলোয় আলোকিত হয়েছে দ্বীপের হাট-বাজার ও অতিপ্রয়োজনীয় রাস্তাসহ বিভিন্ন স্থাপনা সমুহ। এতে প্রচলিত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকলেও সৌরবিদ্যুতের আলোয় আলোকিত থাকে দ্বীপাঞ্চলের এ সব এলাকা।

অপরদিকে কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক দূরদর্শিতায় সৌরবিদ্যুতের আলোয় নতুনভাবে আলোকিত হয়ে উঠলো মহেশখালীর দ্বীতিয় প্রধান পাহাড়ি শাপলাপুর সড়কটি।

সূত্র জানায় -সরকারের ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের টিআর-কাবিটার নির্বাচনী এলাকাভিত্তিক সোলার বরাদ্দ হতে এ আসনের এমপি মহেশখালী সদর থেকে শাপলাপুরগামী সড়কের দুইপাশে মোট-৪৬টি সোলার স্ট্রীট লাইট স্থাপনের উদ্যোগ নেন। এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে মোট-২৫,৯৮,৫৪০ টাকার সোলার বরাদ্দ দেন আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক এমপি। তা দ্রুত বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেওয়া হলে এরইমধ্যে এ সোলার স্ট্রিট লাইট স্থাপনের কাজও সম্পন্ন হয়েছে।

সন্ধ্যা নামলেই ঝোপজঙ্গলে ঘেরা এ সড়কটির দুই  পাশে জ্বলে উঠছে সৌরবাতির আলো। দীর্ঘদিন পর হলেও সরকার তথা স্থানীয় এমপির এমন জনমুখি উদ্যোগে স্বস্থি ফিরেছে এ সড়ক ব্যবহারকারীদের মাঝে। এক সময়ের ঝুঁকিপূর্ণ এ সড়কটি বর্তমানে আলোকিত হয়ে ওঠায় সন্ধ্যার পর আগের তুলনায় বহুলাংশে বেড়েছে সড়কটির ব্যবহার। মানুষজন ও গাড়িচালকরা অনেকটা স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যবহার করছে সড়কটি। সোলার স্ট্রীট লাইটের আলোয় আলোকিত হওয়ায় এ সড়কে জননিরাপত্তা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে গত ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে টিআর-কাবিটা হতে নির্বাচনী এলাকা ভিত্তিক সোলার, পৌরসভা সোলার ও উপজেলা পরিষদ সাধারণ সোলার খাত হতে মহেশখালীতে মোট- ২,১৫,০১,৯৫২ টাকা মুল্যের বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে সোলার প্যানেল স্থাপনের কাজ বাস্তবায়ন করা হয়েছে বলে জানান উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়বন কর্মর্কতা রাশেদুল ইসলাম।

আলাপকালে শাপলাপুর সড়ক ব্যবহারকারী একাধিক যাত্রী ও ড্রাইভার জনমুখী প্রকল্প গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও এলাকার সাংসদ এর প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × 2 =

আরও পড়ুন