মানবপাচারকারী বাংলাদেশি একটি চক্রের ৯ সদস্য ভারতে গ্রেফতার

fec-image

মানবপাচারকারী বাংলাদেশি একটি চক্রের ৯ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য উত্তর প্রদেশ পুলিশের সন্ত্রাসবাদবিরোধী স্কয়াড (এটিএস)। গ্রেফতারকৃতরা বাংলাদেশি লোকজনকে ভারতে পাচারের পর ভুয়া পাসপোর্ট বানিয়ে দিয়ে সেখান থেকে বিশ্বের অন্যান্য দেশে পাঠিয়ে দিতো।

উত্তর প্রদেশ এটিএসের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার ভারতীয় দৈনিক হিন্দুস্তান টাইমসের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, রোববার দুপুরের দিকে এটিএসের কর্মকর্তারা কানুপর থেকে ওই ৯ বাংলাদেশিকে আটক করেছেন। পরে সোমবার জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এটিএসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সন্ত্রাসবাদবিরোধী পুলিশের একটি দল ভারতে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশকারী ৯ বাংলাদেশিকে রোববার আটক করেছে। কানপুর থেকে ট্রেনযোগে দিল্লিতে পৌঁছানোর পর অন্য কোনো দেশে যাওয়ার উদ্দেশ্য ছিল তাদের। পরে তাদের তথ্যের ভিত্তিতে পশ্চিমবঙ্গ থেকে এই চক্রের মূলহোতা আরেক বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করা হয়।

‌বিবৃতিতে এটিএস বলছে, ভুয়া ভারতীয় নথিপত্র তৈরি করে এই চক্রের সদস্যরা বাংলাদেশ থেকে মানবপাচার করতেন বলে গোয়েন্দা তথ্য ছিল। সেই তথ্যের ভিত্তিতে এটিএসের কর্মকর্তারা অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশকারী আট বাংলাদেশি নাগরিককে শনাক্ত এবং গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃত বাংলাদেশিরা হলেন, আসিদুল ইসলাম, হুসাইন মোহাম্মদ, আলামিন আহমেদ, জাইবুল ইসলাম, জামিল আহমেদ, রাজীব হুসাইন, সাখাওয়াত খান এবং আলাদ্দিন তারেক। অভিযুক্তদের সবার বয়স ২০ এর কোঠায়। পশ্চিমবঙ্গের একটি পরিত্যক্ত মাদরাসায় তাদের রেখে হিন্দিতে কথা বলা ও স্বাক্ষরের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছিল।

ট্রেনযোগে দিল্লিতে নেওয়ার আগে এই বাংলাদেশিদের ভারতীয় পরিচয়পত্র দেওয়া হয়। যেখানে তাদের হিন্দু নাম লেখা ছিল।

এটিএসের কর্মকর্তারা বলেছেন, গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাচারকারী চক্রের মূলহোতা হিসেবে মাহফুজুর রহমানের নাম বলেছেন। তিনি ১ লাখ রুপির বিনিময়ে প্রত্যেককে বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাচার করতেন। এই বাংলাদেশিদের জন্য মাহফুজুর রহমান ভারতীয় ভুয়া পাসপোর্ট ও নথিপত্র তৈরি করতেন। একই সঙ্গে ভারতে পাচার বাংলাদেশিদের দুবাইয়ে কাজের জন্য পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিতেন তিনি।

বাংলাদেশি নাগরিকদের কাছ থেকে পাওয়া গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার কলকাতার ২৪ পরগনার একটি মাদরাসায় অভিযান চালিয়ে মাহফুজুর রহমানকে (৩৪) গ্রেফতার করে এটিএস। বাংলাদেশি নাগরিক মাহফুজুর রহমানও ভুয়া ভারতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে দেশটিতে বসবাস করে আসছিলেন। তাকে সাময়িক রিমান্ডে নেওয়ার জন্য লখনৌতে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন এটিএসের কর্মকর্তারা।

উত্তর প্রদেশের এটিএস অভিযুক্ত ৯ বাংলাদেশির বিরুদ্ধে জালিয়াতি এবং অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার দায়ে এফআইআর দায়ের করেছে। একই সঙ্গে এই ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে তারা।

সূত্র: Dhakapost

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

আরও পড়ুন