“বাজারদর মনিটরিং করতে নিজেই অভিযানে নেমেছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. কামাল হোসেন।”

রমজানে বাজার মনিটরিং অভিযানে ডিসি 

বাজার মনিটরিংয়ে ডিসি

 

রমজানের শুরুতেই দ্রব্যমূল্য স্বাভাবিক রাখতে মনিটরিং কার্যক্রম জোরদার করেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন।

বুধবার (৮মে) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের পাশাপাশি বাজারদর মনিটরিং করতে নিজেই অভিযানে নেমেছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. কামাল হোসেন।

বিকেল ৪ টায় শহরের ঐতিহ্যবাহী বড় বাজারে যান জেলা প্রশাসক। সেখানে ফল, সবজি, মাছ, মাংস, মুরগিসহ নিত্য ভোগ্যপণ্যের বাজার ঘুরে দেখেন তিনি।

এসময় তিনি মূল্য তালিকা দোকানের নির্দিষ্ট স্থানে রাখতে, মুরগি ও মাংসের দাম বেশি না রাখতে এবং সবজির দাম পাইকারী ও খুচরা বাজারের সাথে সামঞ্জস্য রাখতে একাধিক দোকানিকে সতর্ক করেন জেলা প্রশাসক।

এ সময় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহজাহান আলী, কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এইচএম মাহফুজুর রহমান, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম জয়, একেএম লুৎফুর রহমান আজাদ, পৌরসভার কাউন্সিলর মাহবুবুর রহমান, হেলাল উদ্দিন কবির, মিজানুর রহমানসহ বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, জেলা মার্কেটিং অফিসার, আনসার ব্যাটেলিয়ন এবং মডেল থানা পুলিশ অফিসার উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সাইফুল ইসলাম জয় বলেন, অভিযানে বাজার মালিক সমিতি, খুচরা এবং পাইকারী বিক্রেতাসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে পবিত্র রমজানে দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি দোকানে মূল্য তালিকা দৃশ্যমান স্থানে টাঙিয়ে দিতে, ডিজিটাল ওজন পরিমাপক মেশিন স্থাপন, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতাসহ নানা বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

অভিযানকালে কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন-কক্সবাজার পৌরসভার পক্ষ থেকে ইতোপূর্বে সকল ব্যবসায়ীকে দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কোন ব্যবসায়ী যদি দাম বৃদ্ধি করে সাথে সাথে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি হুমকি দেন ব্যবসায়ীদের।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন আরো বলেন-যে কোন মূল্যে পর্যটন শহর কক্সবাজারকে পরিচ্ছন্ন রাকতে হবে। শহরের সমস্ত বাজার পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান মোবাইল কোর্ট টিম সবসময় মাঠে রয়েছে। যদি কোন ব্যবসায়ী প্রশাসনের দেয়া মূল্য তালিকা না মেনে অবৈধভাবে ব্যবসা করে তাহলে তাকে সরাসরি পাঠিয়ে দেয়া হবে কারাগারে। আর বাজারের সংশ্লিষ্ট ইজারাদার ও ব্যবসায়ী নেতাদের বাজার তদারকির মাধ্যমে নিয়মনীতি মেনে চলার নির্দেশ প্রদান করেন।

যদি কোন ইজারাদার ও ব্যবসায়ী নেতারা পৌরসভা ও জেলা প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করেন তাহলে তাদেরকেও শাস্তির আওতায় আনতে বলেও হুশিয়ারী দেন। এতে কোন ধরনের আপোস-মিমাংসা সহ্য করা হবেনা। রমজান মাস জুড়ে ভ্রাম্যমান আদালতের এই কার্যক্রম চলবে বলে জানান জেলা প্রশাসন কর্মকর্তারা।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 − two =

আরও পড়ুন