রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ৪ আরসা সদস্য গ্রেপ্তার, বিপুল অস্ত্র-গোলাবারুদ উদ্ধার

fec-image

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ চার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে আটক করেছে এপিবিএন পুলিশ। অভিযানে হ্যান্ডগ্রেনেড, ওয়াকি-টকি, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়।

রোববার (১৯ মে) ভোর রাতে উখিয়া উপজেলার ২০ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এস-১/বি-৭ ব্লকের কাঁটাতারের সীমানার বাইরে গঁইয়াম বাগানে অভিযান চালানো হয়।

১৪ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (অতিরিক্ত ডিআইজি) মো. ইকবাল রোববার দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সব জানান।

আটককৃতরা হলেন- উখিয়ার ১৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এইচ-৮১ ব্লকের দ্বীন মোহাম্মদের ছেলে আমির হোসেন (২৯), একই ক্যাম্পের এইচ-১০০ ব্লকের ফজল করিমের ছেলে জিয়াউর রহমান (৩২), উখিয়ার ৪ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সি-৪ ব্লকের আব্দু সালামের ছেলে সৈয়দুল আমিন (৩০) এবং ৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এ-১ ব্লকের বাদশা মিয়ার ছেলে মো. হারুন (২২)।

আটকদের দেওয়া তথ্য মতে আরসা সন্ত্রাসীদের আস্তানায় তল্লাশি চালিয়ে পাওয়া যায় ২টি একনলা বন্দুক, ৪টি ওয়ান শুটারগান, ১টি দেশীয় তৈরি ওয়ান শুটারগান, ৪টি হ্যান্ডগ্রেনেড, ৫ রাউন্ড রাইফেলের গুলি, ২ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, ১ রাউন্ড শর্টগানের কার্তুজ, ১৪টি রাইফেলের গুলির খোসা, ২টি শর্টগানের খোসা, লোহার বিয়ারিংবল, চার্জারসহ ২টি ওয়াকিটকি ও ২টি কিরিচ।

আটকরা মিয়ানমারের সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন আরসা’র সদস্য ও একাধিক মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। তাদের বিরুদ্ধে হত্যা, অপহরণ, অস্ত্র ও চাঁদাবাজিসহ নানা অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানান ১৪ এপিবিএন-এর সহ-অধিনায়ক আরেফিন জুয়েল বলেন।

তিনি বলেন, রোববার ভোর রাতে উখিয়া উপজেলার ২০ এক্সটেনশন নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কতিপয় অস্ত্রধারী লোকজন অপরাধ সংঘটনের উদ্দেশ্যে জড়ো হয়েছে খবরে এপিবিএন পুলিশের একাধিক দল অভিযান চালায়। এতে ঘটনাস্থলে পৌঁছলে দুষ্কৃতকারীরা এপিবিএন সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। আত্মরক্ষার্থে এপিবিএন সদস্যরাও পালটা গুলি ছুড়ে। গোলাগুলির একপর্যায়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় এপিবিএন সদস্যরা ৪ জন দুর্বৃত্তকে আটক করতে সক্ষম হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন