সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর উল্লেখযোগ্য কর্মকাণ্ড

সেপ্টেম্বরে পার্বত্য অঞ্চলে সেনাবাহিনীর অভিযানে ২টি অস্ত্র ও ২৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার

fec-image

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পার্বত্য জনগণের জান-মাল রক্ষায় পার্বত্য চট্টগ্রামে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, সন্ত্রাসী কার্যক্রম দমনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। গত সেপ্টেম্বরে সেনাবাহিনীর অভিযানে ২টি দেশি/বিদেশী অস্ত্র ও ২৮ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। একই সাথে পার্বত্য চট্টগ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নসহ আর্তমানবতার সেবায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

রোববার (১৩ অক্টোবর) আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সেপ্টেম্বর মাসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর উল্লেখযোগ্য কর্মকাণ্ড তুলে ধরা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, বিএসপি, বিজিবিএম, পিবিজিএম, বিজিবিএমএস, পিএসসি, জি গত ৭ সেপ্টেম্বর (শনিবার) রয়েল থাই আর্মির কমান্ডার ইন চীফ এর আমন্ত্রণে তিনদিনের সফরে থাইল্যান্ড যান। সেখানে তিনি ১৯টি দেশের সেনাপ্রধানের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত ইন্দো-প্যাসিফিক আর্মি চীফস্ সম্মেলনে (IPACC) যোগদান করেন। উক্ত অনুষ্ঠানে আয়োজিত এক সেমিনারে সেনাবাহিনী প্রধান “Trust Building Among Indo-Pacific Land Forces for Risk Reduction: The Experience of Bangladesh” বিষয়বস্তুর উপর তাঁর বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

উল্লেখ্য, ডিজি বিজিবি থাকাকালীন সময়ে সীমান্তবর্তী দেশসমূহের ল্যান্ড ফোর্সের সাথে সম্পর্ক উন্নয়ন এবং রোহিঙ্গা সমস্যা নিরসনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভূমিকা নিয়ে তাঁর অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞানকে সকলের মাঝে তুলে ধরতে তাঁকে এই বিশেষ আমন্ত্রণ জানানো হয়। এছাড়াও সফরকালে সেনাবাহিনী প্রধান ইন্দো-প্যাসিফিক কমান্ডার ও রয়েল থাই আর্মির কমান্ডার ইন চীফ এর সাথে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা করেন।

গত ১৯ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ফুটবল প্রতিযোগিতা-২০১৯ এর সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ৩৩ পদাতিক ডিভিশন, কুমিল্লা সেনানিবাসে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত প্রতিযোগিতায় সেনাবাহিনীর বিভিন্ন ফরমেশনের মোট ১৫টি দল অংশগ্রহণ করে। এ প্রতিযোগিতায় ১৯ পদাতিক ডিভিশন দল চ্যাম্পিয়ন এবং লজিষ্টিক্স এরিয়া দল রানারআপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভার সেনানিবাসস্থ শ্যুটিং ক্লাব পয়েন্টে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে একটি আন্ডারপাসের উদ্বোধন করেন। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের আওতাধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড কর্তৃক প্রকল্পটি নির্ধারিত মেয়াদকালের মধ্যেই সম্পন্ন হয়।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৪ টি গোলন্দাজ ইউনিটকে রেজিমেন্টাল কালার প্রদান অনুষ্ঠান চট্টগ্রামের হালিশহরে অবস্থিত আর্টিলারি সেন্টার ও স্কুলে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত রেজিমেন্টাল কালার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সেনাবাহিনী প্রধান এবং কর্নেল কমান্ড্যান্ট রেজিমেন্ট অব আর্টিলারি, জেনারেল আজিজ আহমেদ। মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ এবং সেনাবাহিনী তথা দেশমাতৃকার সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য রেজিমেন্ট অব আর্টিলারির ইউনিটসমূহকে রেজিমেন্টাল কালার প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one + one =

আরও পড়ুন