স্থগিত হওয়া চিৎমরম ইউপিতে দু’শক্তির নির্বাচনী লড়াই ২৮ নভেম্বর

fec-image

রাঙামাটি কাপ্তাই উপজেলার ৩ নম্বর চিৎমরম ইউনিয়ন পরিষদের স্থগিত হওয়া নির্বাচন হবে আগামী ২৮নভেম্বর। এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র দু’শক্তির ধরের মধ্য দ্বিমুখী লড়াই হবে।

গত ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী নেথোয়াই মারমা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের হামলায় ১৬ অক্টোবর নিজ বাড়ীতে নিহত হয়। পরে নির্বাচন কমিশন ওই চিৎমরম ইউপির নির্বাচন স্থগিত করেন। এবং তৃতীয় ধাপে স্থগিত হওয়া চিৎমরম ইউপির নির্বাচন ঘোষনা করেন। বর্তমানে চিৎমরম ইউপিতে ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ওয়েশ্লিমং চৌধুরীকে দলের প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন দেয়।তার প্রতিদ্বন্দী স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী দুইবারের চেয়ারম্যান খ্যাইসা অং মারমা মধ্য লড়াই হবে। চিৎমরম বাজারসহ পাহাড়ী পাড়া, পল্লীতে চেয়ারম্যান এবং মেম্বার প্রার্থীদের পোস্টারে পোস্টারে গেছে।

আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী ওয়েশ্লিমং চৌধুরী জানান, বর্তমান সরকার এই চিৎমরম ইউনিয়ন ও দূর্গম এলাকা সহ সব কয়টি ওয়ার্ডের উন্নয়ন করেছেন। তারি ধারাবাহিকতায় জনগণ নৌকার প্রার্থীকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করাবেন।

অপরদিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী খ্যাইসা অং মারমা জানান, আমি দুই বার চেয়ারম্যানের দায়িত্বকালীন সময়ে এই এলাকার জনগণের সুখ দুঃখের সাথে মিশে ছিলাম। এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিজেকে সম্পৃক্ত করেছি, তাই এবারোও জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার তানিয়া আক্তার জানান, ঐ ইউনিয়নে মোট ভোটার ৩৫৫৬জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৯টি এবং ১৮টি কক্ষ থাকবে। বিগত ১১ নভেম্বর কাপ্তাই উপজেলার ৩ টি ইউনিয়নে উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। আশা করছি ঐ ইউনিয়নেও ২৮নভেম্বর বিরতিহীন ভাবে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হবে।

ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডে ২ জন, ৫ নং ওয়ার্ডে ২ জন এবং ৬ নং ওয়ার্ডে ৩ জন সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচন করছেন। বাকি ওয়ার্ড গুলোতে ইতিমধ্যে বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন।এছাড়া ওই ইউনিয়নে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ৩ টি’তেই বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় নির্বাচিত হয়ে গেছেন।

চন্দ্রঘোনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা( ওসি) ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, রাইখালী ইউনিয়ন এর মতো আমরা চিৎমরম ইউনিয়নে প্রত্যেক প্রার্থীকে আলাদা আলাদা ভাবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছি। নির্বাচনকালীন সময়ে টহল জোরদার করেছি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 3 =

আরও পড়ুন