নানিয়ারচরে প্রতিপক্ষের গুলিতে ইউপিডিএফ’র ২ কর্মী নিহত

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাঙামাটি:

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলায় প্রতিপক্ষের গুলিতে ইউপিডিএফ’র দুই কর্মী নিহত হয়েছে। নিহতরা হলো- ইউপিডিএফ’র কর্মী আকর্ষণ চাকমা (৪০) এবং শ্যামল কান্তি চাকমা ওরফে সুমন্ত চাকমা (৩৮)। শুক্রবার (২১ সেপ্টেম্বর) ভোরে উপজেলার বুড়িঘাট ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জেএসএস এমএন লারমা গ্রুপের একদল সশস্ত্র সদস্য শুক্রবার ভোর চারটার দিকে বুড়িঘাট ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকা রাম সুপাড়ি পাড়ায় সুমতি চাকমার বাড়িতে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট’র ( ইউপিডিএফ) সশস্ত্র গ্রুপের কর্মী আকর্ষণ চাকমা এবং শ্যামল কান্তি সুমন্ত চাকমাকে গুলি করে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বুড়িঘাট ইউনিয়নের রামসুপারি পাড়ায় আঞ্চলিক দলীয় সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের একটি দল ভোরে নিহতদের বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হয়। খবর পেয়ে মহালছড়ি সেনা জোনের নেতৃত্বে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি দল সেখানে গেলে উভয় পক্ষের সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাসী চালিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা একটি এলজি, দুই রাউন্ড এমুনিশন, ৩৫ রাউন্ড গুলি খোসা, একটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়েছে।

জানা গেছে, বাড়ি থেকে উক্ত দু’জনকে বের করে কিছুটা অদূরে নিয়ে ধারালো অস্ত্রদিয়ে কুপিয়ে এবং গুলি করে মৃত্যু নিশ্চিত করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

পুলিশ লাশ উদ্ধার করে লাশের ময়না তদন্তের জন্য রাঙামাটি জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

এদিকে ইউপিডিএফের মুখপাত্র নিরন চাকমা গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ঘটনার জন্য সংস্কারবাদীদের দায়ী করে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নানিয়ারচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ জানান, স্থানীয়দের মাধ্যমে জানতে পেরেছি পাহাড়ের দুটি সশস্ত্র গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছে।

সকালে ঘটনাস্থলে পুলিশ রওনা করেছে, সেখান থেকে আসলে বিস্তারিত জানা যাবে বলে পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × three =

আরও পড়ুন