লামায় অনিল কান্তি চাকমার বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা

লামা প্রতিনিধি:

বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের গয়ালমারা থেকে অস্ত্রসহ পাহাড়ি সন্ত্রাসী অনিল কান্তি চাকমা, প্রকাশ ডেংগা চাকমা ও তার সহযোগি সুব্রত চাকমার বিরুদ্ধে লামা থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এই সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের খবরে ফাঁসিয়াখালী ও আশপাশের এলাকায় জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

বুধবার (২১মার্চ) পুলিশ বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে লামা থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করেছে।

স্থানীয়রা অনিল কান্তি চাকমা প্রকাশ ডেংগা চাকমার সহযোগি বেলেষ্টার পাড়ার রাবার ত্রিপুরা, রুবেল ত্রিপুরা, মতি ত্রিপুরা ও নতুন ত্রিপুরা পাড়ার রাচন্দ্রী ত্রিপুরা, লাডেই ত্রিপুরা, মেধা ত্রিপুরা ও বিশ্বমনি ত্রিপুরাকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন। পাহাড়ে সশস্ত্র সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মাধ্যমে লামা, আলীকদম ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় নিয়ন্ত্রন প্রতিষ্ঠার জন্য ডেংগা চাকমার নেতৃত্বে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চলে আসছে।

অনিল কান্তি ত্রিপুরা ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বেলেষ্টার কারবারি ত্রিপুরা পাড়ায় নতুন করে বসতি গড়ে তোলে পুরো এলাকায় সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, অপহরণ, ধর্ষণসহ সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। গয়ালমারা এলাকায় সন্ত্রাসী কার্যক্রমের একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণ করে যাচ্ছে গ্রেফতারকৃত ডেংগা চাকমা। রাবার বাগান মালিক, ব্যবসায়ী, কৃষক, স্থানীয় জনসাধারণ, গাছ-বাঁশ ও পাথর ব্যবসায়ী, নিরীহ জনসাধারণসহ কোন শ্রেণির মানুষই ডেংগা চাকমার চাঁদাবাজির হাত থেকে রেহাই পায়নি। নিরীহ বাঙ্গালী যুবতী নারীদের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ডেংগা চাকমা ও সহযোগি সন্ত্রাসীরা নির্যাতন করার অভিযোগও রয়েছে। স্থানীয় কৃষককে হত্যাসহ অপহরণ করার অভিযোগ অসংখ্য।

অনিল কান্তি চাকমার বাড়ি বান্দরবান সদর উপজেলায়। সে সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের বেলেষ্টার কারবারি ত্রিপুরা পাড়ায় অবস্থান করে আসছে। লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ও আলীকদম সদর ইউনিয়নের মধ্যবর্তী স্থানের গভীর জঙ্গলে শতাধিক সশস্ত্র পাহাড়ী সন্ত্রাসীসহ সে আস্তানা গড়ে তুলেছে। আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীর একাদিক অভিযানে অনিল কান্তি চাকমা গ্রেফতার এড়াতে সক্ষম হয়েছেন। ফাঁসিয়াখালী ও নাইক্ষ্যংছড়িতে অনিল কান্তি চাকমা ডেংগা চাকমা হিসাবে পরিচিত। স্থানীয় কিছু ব্যক্তি এসকল সন্ত্রাসীদের সহযোগিতা করে আসছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সোমবার দুপুরে নিরাপত্তা বাহিনীর টানা অভিযানের মুখে ডেংগা চাকমা ও তার সহযোগিকে আটক করা হয়। ২টি একনলা দেশীয় বন্দুক, ১টি কাঠের তৈরি দেশিয় বন্দুক ও নগদ ৬৯ হাজার ১৭ টাকা ও ৩টি মোবাইলসহ শীর্ষ সন্ত্রাসী দুইজনকে আটক করা হয়েছে।
লামা থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, আটক সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে রিমান্ডে নিয়ে সন্ত্রাসীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তথ্য বের করা হবে বলে জানা গেছে।

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + 20 =

আরও পড়ুন