আবরার হত্যাকাণ্ডে শঙ্কা জাতিসংঘ আবাসিক প্রতিনিধির

fec-image

ক্যাম্পাসে আবরারের মতো হত্যাকাণ্ড কীভাবে ঘটলো, তা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন ঢাকায় কর্মরত জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো। বুধবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে ডিপ্লোমেটিক করেসপনডেন্ট অব বাংলাদেশ আয়োজিত ‘ডিক্যাব টক’-এ অতিথি হিসেবে তিনি তার আতঙ্কের কথা জানান।

জাতিসংঘ আবাসিক প্রতিনিধি বলেন, ‘আমার প্রতিক্রিয়া হচ্ছে—এটি একটি আতঙ্কজনক ঘটনা। আমার দুই সন্তান বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে। এ ধরনের ঘটনা ক্যাম্পাসে কীভাবে ঘটে, সেটি চিন্তা করাও একটি আতঙ্কের বিষয়। আমরা একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছি, যেন এ ঘটনার দ্রুত ও স্বচ্ছ তদন্ত হয়। বিবৃতিতে আমরা আহ্বান জানিয়েছি—এই হত্যাকাণ্ডের যেন বিচার হয় এবং শাস্তি না হওয়ার যে প্রবণতা রয়েছে, সেটিও যেন বন্ধ হয়। এধরনের সহিংস ঘটনা বন্ধ করার জন্যও আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।’

মিয়া সেপ্পো বলেন, ‘বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সহিংসতার যে প্যাটার্ন রয়েছে, সেটি বন্ধ করার জন্য আমরা আহ্বান জানাই। কারণ, এটি উদ্বেগজনক। বাবা-মায়েরা যেন নিশ্চিত থাকতে পারেন ক্যাম্পাসে তাদের সন্তানরা নিরাপদে আছে। মানুষেরা যেন সব জায়গায় নিরাপদে থাকে, সেটাও নিশ্চিত করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে জনগণের মনে ক্ষোভ আছে। আমি প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতি দেখেছি। এধরনের প্রতিক্রিয়া থাকতে হবে যাতে করে এমন ঘটনা আর না ঘটে।’ তিনি মনে করেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন যেন এ বিষয়টি তদন্ত করে। এবং এ বিষয়ে তাদের সক্ষমতা কতটুকু, সেটা তারা জানতে পারে।’

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ডিক্যাবের সভাপতি রাহীদ এজাজ। তাকে সহায়তা করেন ডিক্যাবের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম হাফিজ।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × three =

আরও পড়ুন