ঈদগাঁহে অবৈধ বৈদ্যুতিক ফাঁদে নিহতের ঘটনায় মামলা দায়ের

fec-image

 আপডেট 
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁহস্থ ইসলামাবাদে হাতির অনিষ্ট থেকে ধান ক্ষেত রক্ষার বৈদ্যুতিক ফাঁদে প্রাণ গেছে যুবকের। এ ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে বলে জানা গেছে।

বুধবার(১৩ নভেম্বর) ভোর রাতে ইসলামাবাদ ইউনিয়নের গজালিয়ার পাহাড়ি রাজঘাট এলাকায় মর্মান্তিক  এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, পার্শ্ববর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের কৈলাশঘোনা এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে দুই সন্তানের জনক আয়াত উল্লাহ বিদেশ যাওয়ার প্রস্তুতি সারতে দুই দিন পূর্বে  ঢাকায় যায়। মঙ্গলবার রাতে ঢাকা থেকে ফেরার সময় শ্বাশুড়ির অসুস্থতার সংবাদ পায়। বুধবার ভোর রাতে গাড়ি যোগে ঢাকা থেকে নিজ এলাকা ইসলামপুরে পৌঁছলেও গাড়ি থেকে  না নেমে অসুস্থ শ্বাশুড়িকে দেখতে সরাসরি ইসলামাবাদের  ফকির বাজার গাড়ি থেকে নেমে শ্বশুর বাড়ির দিকে যায়। সোজা পথে না গিয়ে তাড়াতাড়ি পৌঁছতে শ্বশুর বাড়ির পার্শ্ববর্তী এক লোকের ধান ক্ষেতের রাস্তা দিয়ে হাটার চেষ্টা করে।

ওই সময় বন্য হাতির অনিষ্ট থেকে  ধান ক্ষেত রক্ষা করতে  বিদ্যুৎ এর লাইন থেকে সরাসরি রাতের আঁধারে অবৈধভাবে দেয়া বৈদ্যুতিক ফাঁদের তারে স্পৃষ্ট হয়ে মর্মান্তিক ভাবে মৃত্যুবরন করে আয়াত উল্লাহ। ভোর  হলে পথচারীরা এক যুবককে ধান ক্ষেতে পড়ে থাকতে দেখে লোকজন জড়ো হয়। ঐসময় তার পাশে ফলফলাদি ও নাস্তা পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে শ্বশুর বাড়ির লোকজন এসে লাশটি তাদের জামাই আয়াতুল্লাহর বলে সনাক্ত করে।

এদিকে এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে ধান ক্ষেত মালিক ও তার পরিবারের সদস্যরা পালিয়ে যায় বলে জানা যায়। সংবাদ পেয়ে ঈদগাঁহ পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। সন্ধ্যায় ময়না তদন্ত সম্পন্ন করে রাতে এশারের নামাজের পর নিহতের পৈত্রিক কবরস্থান কৈলাশঘোনায় তাকে দাফন করা হয়। এর পূর্বে নিহতের লাশ এলাকায় পৌছার সংবাদ পেয়ে তাকে শেষবারেরমত এক নজর দেখতে বাড়িতে হাজারো মানুষ ভিড় করতে থাকে।

ঈদগাঁহ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান প্রাথমিকভাবে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের ফাঁদে স্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে জানান। তবে এখনো পর্যন্ত নিহতের পক্ষ থানায় মামলা বা অভিযোগ  করেছে কিনা অবগত হননি।

এদিকে নিহতের স্বজনরা জানান, ধান ক্ষেত মালিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ঈদগাঁহ পল্লী বিদ্যুৎ এরিয়া অফিসের ডিজিএমের কাছে রাতের আঁধারে ধান ক্ষেতে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের কারণেে নিহতের ঘটনায় তাদের করণীয় কি জানতে চাইলে বলেন, এখনো পর্যন্ত কেউ তাদের কাছে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ জানাননি।তবে এ মর্মান্তিক ঘটনার সংবাদ পেয়ে তারা বিষয়টির খোঁজ খবর নিচ্ছেন বলে জানান।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 + 3 =

আরও পড়ুন