উখিয়ায় স্ত্রীর মর্যাদা না পাওয়ায় স্বাস্থ্য সহকারী স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ

fec-image

উখিয়ায় নুর জাহান নামের এক মহিলাকে চুক্তিনামা মূলে বিয়ে করে বাড়িতে না নিয়ে প্রতারণার আশ্রয় নেয়ার অভিযোগ উঠেছে উখিয়া হাসপাতালের স্বাস্থ্য সহকারী রুহুল আমিন খান (৩৬) এর বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী মহিলা ন্যায় বিচারের আশায় গত সোমবার জেলা সিভিল সার্জন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত জুন মাসের ১৯ তারিখে জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনাইছড়ি এলাকার মৃত ফজল করিমের মেয়ে নুর জাহান (২৯) কে একই ইউনিয়নের পাইন্যাশিয়া এলাকার নুর আহমদ এর ছেলে রুহুল আমিন খান (৩৬) এর সাথে ৬ লক্ষ টাকার চুক্তিনামা মূলে, স্থানীয় ছৈয়দ আলম, জসিম উদ্দিন, মোঃ বাবুলের উপস্থিতিতে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়।

কিছুদিন পর শশুর বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার জন্য তার স্বামী রুহুল আমিন খানকে বললে সে বিভিন্ন অজুহাতে আজ কাল বলে সময়ক্ষেপণ করতে থাকে। বিষয়টি তিনি স্থানীয় ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যানকে অবহিত করেন।

নুর জাহান সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, বিয়ের পর থেকে আমার স্বামী আমাকে ভরণ-পোষণ না দিয়ে উল্টো আমার গরিব বাবার কাছে ৩ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় আমার বাড়িতে এসে সময় অসময়ে আমাকে মানুষিক ভাবে নির্যাতন করে। আমি নিরুপায় হয়ে তার পরিবারকে ঘটনার বিষয়ে জানালে তারা উল্টো আমাকে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। তাই আমি স্ত্রীর মর্যাদা ও ন্যায় বিচারের আশায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা, সিভিল সার্জনসহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ দায়ের করেছি।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘ ৯ বছর ধরে রুহুল আমিনের সাথে তার সম্পর্ক চলে আসছিল। প্রতিমধ্যে সে আরেকটি বিয়ের জন্য তার নিকট অনুমতি চাইলে সে সম্মতি দেয়। ২০১৮ সালে সে আরেকটি বিয়ে করে। বিয়ের পরেও আমার বাড়িতে নিয়মিত যাওয়া-আসা করত রুহুল আমিন। যার ফলে আমার সাথে বিয়ের চুক্তিনামা হয় ২০১৯সালের জুন মাসে। কিন্তু বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে আমি তাকে কাবিননামা মূলে বিয়ে করে তার বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দিই। এরপর থেকে সে আমার সাথে নানান তাল-বাহানা শুরু করে।

এ ব্যাপারে জানতে অভিযুক্ত রুহুল আমিন খান জানান, ঘটনাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা, আমার পরিবারের মান সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য আমার বিরুদ্ধে এসব মিথ্যাচার করা হচ্ছে। আমার সাথে ওই মহিলার কোন সম্পর্ক ছিলনা। চুক্তিনামা বিষয়ে রুহুল আমিন বলেন, এটি ভূঁয়া কাগজ সৃজন করেছে। এ ধরনের কোন চুক্তিনামা আমি করিনি।

উখিয়া স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মান্নান এর নিকট মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 + 12 =

আরও পড়ুন