আপডেইট

কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৭ আহত ১০

fec-image

কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে ৭ জন রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরও ১৫ জন। এঘটনায় অস্ত্রসহ মুজিবুর রহমান নামে একজনকে আটক করেছেন ৮ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের সদস্যরা।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ভোরে উখিয়ার ১৮নং ক্যাম্পে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- উখিয়ার বালুখালী-২ এর ইদ্রিস (৩২), বালুখালী-১ এর ইব্রাহীম হোসেন (২২), ১৮ নম্বর ক্যাম্পের এইচ ব্লকের বাসিন্দা নুরুল ইসলামের ছেলে আজিজুল হক (২৬), আবুল হোসেনের ছেলে মো. আমীন (৩২), মো. নবীর ছেলে হাফেজ নুর হালিম (৪৫), মৌলভী হামিদুল্লাহ(৫০), নুর মোহাম্মদ এর ছেলে নুর কায়সার (১৫)।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কক্সবাজার ৮ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি শিহাব কায়সার খান বলেন, ‘কি কারণে দুই গ্রুপে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। অস্ত্রসহ একজনকে আমরা আটক করেছি। ৭ জন নিহত হয়েছে। আরও ১৫ জনের মতো আহত হয়েছে, তবে ৭ জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় এমএসএফ হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে ক্যাম্পের সাথে সংশ্লিষ্ট অন্য একটি সূত্র নাম না প্রকাশ করার শর্তে ৭ জন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন। আহতদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। সকলকে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। আরসা নামক সন্ত্রাসীরা এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত বলে ক্যাম্প বাসীর দাবী।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অধিনায়ক পুলিশ সুপার শিহাব কায়সার বলেন, শুক্রবার ভোরে উখিয়া বালুখালী ১৮ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে দুই গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে চার রোহিঙ্গা নিহত হয়। এ সময় আহত হয় ১০ রোহিঙ্গা

ঘটনার পরপরই এপিবিএন এবং জেলা পুলিশ বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে নিহতদের লাশ উদ্ধার এবং অস্ত্রধারীদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেছে। পুলিশ এ পর্যন্ত একজনকে আটক করেছে বলে জানিয়েছেন শিহাব কায়সার।

Print Friendly, PDF & Email
ঘটনাপ্রবাহ: নিহত, রোহিঙ্গা ক্যাম্প, সংঘর্ষ
Facebook Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty + 20 =

আরও পড়ুন